জন্মসনদ দিয়ে টঙ্গীতে রোহিঙ্গা তরুণীকে বিয়ে

প্রকাশিত

অনলাইন ডেস্ক-

গাজীপুর সিটি করপোরেশনের ৫৫ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলরের স্বাক্ষর সম্বলিত জন্ম সনদ দিয়ে রোহিঙ্গা তরুণী ফাতেমা আক্তার (১৯) কে বিয়ে দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে। গত শুক্রবার রাতে ঘটনাটি জানাজানি হয়।

জানা গেছে, মিয়ানমারের সহিংসতা থেকে পালিয়ে আসা লাখ লাখ রোহিঙ্গা সীমান্ত পেরিয়ে বাংলাদেশে আশ্রয় নেয়। এই পরিবারটি ও ওই নারী রোহিঙ্গা তাদের একজন। আইনের প্রতি বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে রোহিঙ্গা তরুণীকে বিয়ে করেছেন গাজীপুরের টঙ্গীতে বসবাসরত এক যুবক। তার নাম সাইফুল ইসলাম (২৬)। সে বরিশাল জেলার বাখেরগঞ্জ থানার চরমোদ্দি ইউনিয়নের সাদেক আলীর ছেলে।

এ ব্যাপারে গাজিপুর ৫৫নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আবুল হাসেম গণমাধ্যমকে বলেন, এরা এই এলাকার না। এক সময় রোহিঙ্গা ছিলো। তবে দীর্ঘদিন যাবত এই এলাকায় বসবাস করছে বলে আমার জানা ছিল না। জন্ম সনদটি ভুল করে আমার অফিস থেকে গিয়েছে কিনা তা আমার জানা নেই।

গাজীপুর সিটি মেয়র জাহাঙ্গীর আলম গণমাধ্যমকে বলেন, ‘ঘটনাটির সত্যতা নিশ্চিত হলে ওয়ার্ড কাউন্সিলরের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’ টঙ্গী পশ্চিম থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. এমদাদুল হক সাংবাদিকদের বলেন, আমরা শুনেছি, সে একজন রোহিঙ্গা নারীকে বিয়ে করেছে। আমরা তার খোঁজে গিয়েছিলাম। এ ঘটনায় পুলিশ তদন্ত করছে বলে জানিয়েছেন তিনি।