‘অদিতি’স ওয়ার্ল্ডের আনুষ্ঠানিক যাত্রায় জয়ার অংশগ্রহণ

প্রকাশিত

‘অদিতি’স ওয়ার্ল্ডের আনুষ্ঠানিক যাত্রায় জয়ার অংশগ্রহণ

কখনো কলকাতা, কখনো বাংলাদেশ- এভাবেই যাওয়া-আসার মধ্যেই ভীষণ ব্যস্ততায় কাটছে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারপ্রাপ্ত নায়িকা জয়ার সময়। কিছু দিন আগেই কলকাতা থেকে ঢাকায় ফিরে মাহমুদ দিদার পরিচালিত ‘বিউটি সার্কাস’ চলচ্চিত্রের শুটিংয়ে অংশ নেন তিনি। আবার আজই কলকাতার উদ্দেশে উড়াল দিয়েছেন তিনি।

চলচ্চিত্রের কাজের বাইরে নিজের জন্য একটু আলাদা সময় বের করাই যেন কঠিন হয়ে পড়ে। কিন্তু ২০১৩ সালের ২৪ এপ্রিল প্রয়াত হওয়া মাত্র ১৬ বছরের মেয়ে অদিতির স্মরণে বিশেষ জন্মদিনের অনুষ্ঠানে জয়া সব ব্যস্ততাকে পাশ কাটিয়ে উপস্থিত ছিলেন। মুক্তা দেব এবং অবসরপ্রাপ্ত ব্রিগেডিয়ার জেনারেল অঞ্জন কুমার দেবের ছোট মেয়ে অদিতির স্মরণে রাজধানীর গুলশানের ৩৪ নম্বর রোডের ১৩ নম্বর বাসাতে গত বছর আগস্ট মাসে গড়ে তোলা হয়- ‘অদিতি’স ওয়ার্ল্ড’-দ্য আর্ট অব ফিটনেস সেন্টার। তবে এই নামে যাত্রা শুরু হওয়ার আগে থেকেই এই ফিটনেস সেন্টারে জয়ার নিয়মিত যাতায়াত। বেশ সখ্যও ছিল প্রয়াত অদিতির সাথে। যে কারণে গেল ১৫ মার্চ অদিতির জন্মদিনে ‘অদিতি’স ওয়ার্ল্ডের আনুষ্ঠানিক যাত্রায় অনেকের মতো জয়াও অংশগ্রহণ করেন। সাথে আরো উপস্থিত ছিলেন বরেণ্য অভিনেতা আল মামুন ও জয়ার ছোট বোন কান্তা মাসউদ।

জয়া আহসান বলেন, ‘সবসময়ই আমাকে দুই বাংলার কাজ নিয়ে দুই বাংলায় দারুণ ব্যস্ত সময় পার করতে হয়। যেহেতু মুক্তা দিদির ফিটনেস সেন্টারে আমার দীর্ঘদিনের যাতায়াত, তাই অদিতির সঙ্গেও আমার বেশ সখ্য ছিল। তাকে আমি খুব আদরও করতাম। তার হঠাৎ প্রয়াণে কষ্ট পেয়েছি। সেই অদিতির জন্মদিনে অদিতির নামে ফিটনেস সেন্টারের শুভযাত্রায় অনেকের মতো আমিও অংশগ্রহণ করি। এই প্রতিষ্ঠানটির জন্য আমার শুভ কামনা রইল।’

মুক্তা বিশ্বাস ২০ বছর ধরে এই পেশার সাথে সম্পৃক্ত। এ দিকে গতকালই কলকাতার উদ্দেশে রওনা হয়েছেন জয়া। সেখানে আজ থেকে শিবু প্রসাদ রায়ের নির্দেশনায় ‘কণ্ঠ’ চলচ্চিত্রের কাজ শুরু করবেন তিনি। এতে জয়ার সঙ্গে পাওলি ধামও কাজ করবেন বলে জানান জয়া। এ দিকে মাহমুদ দিদারের নির্দেশনায় জয়া অভিনয় করছেন ফেরদৌসের সাথে। বাংলাদেশে জয়া অভিনীত মুক্তিপ্রাপ্ত সর্বশেষ চলচ্চিত্র আকরাম খান পরিচালিত ‘খাঁচা’। মুক্তির অপেক্ষায় আছে তার নিজের প্রযোজিত অনম বিশ্বাস পরিচালিত ‘দেবী’ চলচ্চিত্রটি।

ছবি : মোহসীন আহমেদ কাওছার