আকাশচুম্বী আয় করেন এই তারকারা

প্রকাশিত

ঢাকাই মিডিয়াতে সিনেমার তারকাদের থেকে টিভির তারকারা কম জনপ্রিয় না। তাদের জীবন যাপনও বেশ বিলাসবহুল। তাদের জনপ্রিয়তা এরইমধ্যে দেশের গণ্ডি পেড়িয়ে প্রতিবেশী দেশ কলকাতাতেও। স্বভাবতই প্রশ্ন আসে এত জনপ্রিয় তারকাদের আয় কেমন।

মেহজাবিন:
‘বড় ছেলে’ নাটকে অভিনয় করে মেহজাবিনের জনপ্রিয়তা তুঙ্গে। এরপর থেকে বেশ সম্মাননা নিচ্ছেন তিনি। শোনা যাচ্ছে, অভিনেত্রীদের মধ্যে বর্তমানে সর্বোচ্চ পারিশ্রমিক নিয়ে থাকেন মেহজাবিন। এক ঘন্টার নাটকের জন্য প্রায় ৫০ হাজার এবং টেলিফিল্মের জন্য তার পারিশ্রমিক ওঠে ৭০ হাজার টাকা পর্যন্ত। তিনি বিজ্ঞাপনে নেন চার থেকে পাঁচ লাখ টাকা। চরিত্র বুঝে আরো বেশি চান এই অভিনেত্রী।

অপূর্ব:
ছোটপর্দায় এ সময়ে জনপ্রিয় তারকাদের একজন অভিনেতা অপূর্ব। বিশেষ করে গত দুই ঈদের নাটকে বেশ আলোচিত ছিলেন তিনি। পাশাপাশি তার পারিশ্রমিকও বেড়ে আকাশচুম্বী হয়েছে এবার। শোনা গেছে, ব্যাচ ২৭ টেলিফিল্মের জন্য তিনি এক লাখ টাকা হাঁকিয়েছেন এই অভিনেতা।

জাহিদ হাসান:
এক ঘণ্টার নাটকের জন্য তিনি সাধারণত নিয়ে থাকেন ৫০ হাজার টাকা। টেলিছবিতে নেন ৬০-৭০ হাজার টাকা। ধারাবাহিকের ক্ষেত্রে দিনে ১০-১৫ হাজার মত নাকি পারিশ্রমিক নিয়ে থাকেন এই তারকা।

মোশাররফ করিম:
এক ঘণ্টার নাটকের জন্য ৪০-৫০ হাজার টাকা নেন নিজের পারিশ্রমিক। তবে এক ঘণ্টার নাটকে দুই দিন সময় দিতে পারেন না এই অভিনেতা। টেলিফিল্মের বেলায় দুই বা তিন দিনের মতও সময় দেন এই অভিনেতা। সে ক্ষেত্রে তুলনামূলকভাবে কম পারিশ্রমিক নেন তিনি। শোনা গেছে, টেলিফিল্মে ৭০ থেকে ৮০ হাজার টাকা নিয়ে থাকেন মোশাররফ করিম। তবে তিন দিন সময় দিলেও কোন হাউজে একটানা কাজ করেন না এই অভিনেতা। তবে তার বিজ্ঞাপনের পারিশ্রমিক শুনলে অবাক হতে পারেন। তিনি প্রতি কাজের জন্য ১০ থেকে ২০ লাখ পর্যন্ত পারিশ্রমিক নেন।

চঞ্চল চৌধুরী:
প্রতিদিনের কাজের জন্য এই অভিনেতাও ৪০ থেকে ৫০ হাজার টাকা নিয়ে থাকেন। তবে বিজ্ঞাপনে ৫ থেকে ৮ লাখ টাকা পারিশ্রমিক নেন চঞ্চল চৌধুরী।

তিশা:
এক ঘণ্টার নাটকের জন্য ৪০ থেকে ৫০ হাজার টাকা নিয়ে থাকেন। তবে ধারাবাহিকে প্রতিদিনের জন্য ১৫ থেকে ২০ হাজার টাকা। তাছাড়া বেশিরভাগ বিজ্ঞাপন থাকে তার স্বামীর পরিচালনার, তাই সেখানে সমঝোতায় কাজ করেন এই অভিনেত্রী।