আপত্তিকর ছবি ফেইসবুকে ভাইরালে স্কুলছাত্রীর আত্মহত্যা

প্রকাশিত

 

মাসুদ রেজা ফিরোজী,নিজস্ব প্রতিবেদক-
মাদারীপুরের শিবচরে স্কুলছাত্রী লিপি আক্তার (১৭) তার আপত্তিকর ও অন্তরঙ্গ মূহুর্তের কিছু ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ফেইসবুকে ভাইরাল হওয়ার কারণে সেই ক্ষোভে বিষপানে আত্মহত্যা করেছে বলে এমন অভিযোগ পাওয়া গেছে। রবিবার (২১ ফেব্রæয়ারি) দুপুরে তার মরদেহের সুরতহাল রিপোর্ট তৈরি করে ময়নাতদন্তের জন্য মাদারীপুর সদর হাসপাতালের মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে।
এলাকাবাসী ও পারিবারিক সূত্র জানায়, মাদারীপুরের শিবচরের উপজেলার কাদিরপুর গ্রামের যুবক রনি বেপারীর সাথে একই উপজেলার পাঁচ্চর ইউনিয়নের বালাকান্দি গ্রামের স্কুলছাত্রী লিপি আক্তারের সাথে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে। লিপির বাবা দুবাই প্রবাসী। ছেলের পক্ষ থেকে বিয়ের প্রস্তাব নিয়ে গেলে মেয়ের পক্ষ প্রত্যাখান করে। এরপর থেকেই বখাটে যুবক রনি বেপারী সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ফেইসবুকের ‘নিঝুম রাতের নিলপরি’ আইডিতে মেয়েটির কিছু অন্তরঙ্গ মূহুর্তের ছবি আপলোড করে দেয়। এতে করে মেয়েটির বেশ কিছু ছবি ভাইরাল হয়ে যায়। ওই ক্ষোভে গত ১৯ ফেব্রæয়ারী শুক্রবার সন্ধায় মেয়ের ঘরে থাকা বিষাক্ত বিষপান করলে গুরুতর অসুস্থ্য অবস্থায় লিপি আক্তারকে প্রথমে শিবচর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেয়া হয়। সেখান থেকে উন্নত চিকিৎসার জন্য প্রথমে ফরিদপুর এবং পরে ঢাকা নেয়ার পর রোববার সকালে সে মারা যায়। নিহত লিপি আক্তার পাঁচ্চর বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের দশম শ্রেনির শিক্ষার্থী ছিল।
এলাকার একটি নির্ভরযোগ্য সূত্র জানায়, ‘নিঝুম রাতের নিলপরি’ নামক ওই ফেক আইডিটি রনি বেপারী নামের যে যুবকটি পরিচালনা করে আসছে। সে মেয়েটির বড় বোনের জামাইয়ের ছোট ভাই রনি। যে কারণে পরিবারের পক্ষ থেকে থানায় কোন অভিযোগ দায়ের করা হয়নি। তবে খবর পেয়ে শিবচর থানা পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শণ এসে মৃতদেহ মাদারীপুর মর্গে পাঠান। এই ঘটনা নিয়ে এলাকায় মিশ্র প্রতিক্রিয়া তৈরি হয়েছে। পরিববারের পক্ষ থেকে ক্যামেরায় কথা বলতে রাজি হয়নি। তবে বিষয়টি এলাকাবাসী জানেন।
নিহতের চাচা ইউসুফ রাজি জানান, আমার ভাতিজি লিপি আক্তারের ছবি ফেইসবুকে ভাইরাল হওয়ার কারণে বিগত দুদিন আগে সে বিষাক্ত পদার্থ পান করে। রবিবার সকালে সে ঢাকায় মারা যায়।
নিহতের মা হিরন বেগম জানান, ‘তার মেয়েকে এর আগে ওই বখাটে রনির পরিবার বিয়ের প্রস্তাব দেয়। আমার এক ভাগ্নিকে ওই বাড়িতে ওরই (রনি বেপারীর) চাচাতো ভাইয়ের কাছে বিবাহ দেওয়ায় আমরা সেখানে আত্মীয় করতে চাইনি। এ কারণে সে ক্ষিপ্ত হয়ে আমার মেয়ে কিছু ছবি ফেইসবুকে ছেড়ে দেয় এবং ছবিসহ আরো ভিডিও ফেইসবুকে ছাড়ার হুমকি দেয়। তবে ক্যামেরার সামনে কোন বক্তব্য দিতে রাজি হননি।’
শিবচর থানার উপ-পরিদর্শক মো. রহমত আলী জানান, খবর পেয়ে ঘটনা স্থলে আসি। দুবাই প্রবাসী দুলাল ফরাজির মেয়ে লিপি আক্তার গত শুক্রবার সন্ধায় নিজের ঘরে থাকা বিষাক্ত দ্রব্য পান করে। লিপি আক্তার গুরুতর অসুস্থ্য হলে প্রথমে শিবচর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেয়া হয়। পরে সেখান থেকে প্রথমে ফরিদপুর পরে ঢাকা নেয়ার পর রোববার সকালে মারা যায়।
শিবচর থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ মিরাজ হোসেন জানান, লোক মারফত খবর পেয়ে সেখানে পুলিশ পাঠাই। ঘটনাস্থলে গিয়ে পুলিশ মরদেহের সুরতহাল রিপোর্ট তৈরি করে। লাশের ময়নাতদন্তে জন্য মাদারীপুর মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে। এ ব্যাপারে একটি অপমৃত মামলা দায়ের করা হয়েছে।
এই ঘটনার পর থেকে রনি বেপারীর পরিবারের কাউকে বাড়ি পাওয়া যায়নি। বিভিন্ন মাধ্যমে যোগাযোগ করার পরেও কাউকে পাওয়া যায়নি।