আবাসিক হোটেল থেকে তরুণীর লাশ উদ্ধার !

প্রকাশিত

চুয়াডাঙ্গা প্রতিনিধিঃ চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলা শহরের বড় বাজারস্থ আবাসিক হোটেল থেকে ফরিদা খাতুন (২২) নামে এক তরুণীর লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। সোমবার দুপুর ১২ টার দিকে চুয়াডাঙ্গা আবাসিক হোটেল থেকে পুলিশ লাশটি উদ্ধার করে। এ ঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য হোটেল মালিক রঞ্জু জোয়ার্দ্দারসহ ৩ জনকে আটক করেছে পুলিশ।

নিহত ফরিদা গাজিপুর শহরের আনোয়ার হোসেনের স্ত্রী। ঘটনার পর থেকে স্বামী আনোয়ার হোসেন পলাতক রয়েছে।

হোটেল মালিক রঞ্জু জোয়ারদার জানান, গত ২১ শে ফেব্রুয়ারি বিকালে ফরিদা বেগমকে সাথে নিয়ে তার স্বামী আনোয়ার হোসেন স্বামী-স্ত্রী পরিচয়ে ২২৪ নম্বর রুম ভাড়া নেয়। সোমবার সকালে বাইরে থেকে তালাবদ্ধ দেখতে পায় হোটেল কর্তৃপক্ষ। কোনো সাড়া শব্দ না পেয়ে অবশেষে চুয়াডাঙ্গা থানা পুলিশে খবর দেয়া হয়। এরপর পুলিশ ওই কক্ষ থেকে লাশ উদ্ধার করে।

চুয়াডাঙ্গা সদর থানার ওসি (অপারেশন) আমির আব্বাস জানান, সোমবার দুপুরে হোটেল কর্তৃপক্ষ থানা পুলিশকে অবহিত করে। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে কক্ষের তালা ভেঙ্গে ফরিদা খাতুনের অর্ধ নগ্ন লাশ দেখতে পায়। পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে লাশটি উদ্ধার করে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করেন। এ ঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য হোটেল মালিক রঞ্জু জোয়ারদার, ম্যানেজার আনিসুর রহমান ও কর্মচারী শাহিন আলীকে আটক করেছে পুলিশ।

চুয়াডাঙ্গা সদর থানার ওসি দেলোয়ার হোসেন খান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, ‘হত্যা না অন্য কোনো ঘটনা তা জানা যায়নি। ময়নাতদন্তের পরই প্রকৃত ঘটনা জানা যাবে। ঘটনার পর থেকে স্বামী আনোয়ার হোসেন পলাতক রয়েছে বলেও তিনি জানান।