ইকার্দির স্ত্রীর সঙ্গে অবৈধ সম্পর্ক ছিল ম্যারাডোনার

প্রকাশিত

ডেস্ক-

ডিয়েগো ম্যারাডোনা মানেই যেন বিতর্ক। মাদক সেবন, একাধিক গার্লফ্রেন্ড, সন্তানকে অস্বীকার, আর্জেন্টিনা বিদ্বেষী বক্তব্য, কখনো আবার ফিফার প্রধানকে গালাগালি–সব সময়ই বিতর্ক যেন বিশ্বকাপজয়ী এই আর্জেন্টাইন ফুটবলারের নিত্য সঙ্গী। এসবের পাশাপাশি বিভিন্ন সময় নারী কেলেঙ্কারিতে জড়িয়েছেন এই ফুটবল-ঈশ্বর।

এ ছাড়া বিভিন্ন সময় এই ফুটবল মহাতারকার যৌন জীবনের নানা রঙিন কাহিনিও উঠে এসেছে সবার সামনে। এবার সেই কাহিনিমালায় যুক্ত হলো নতুন এক ঘটনা। যদিও ঘটনাটি ২০০৬ সালের। তবে আর্জেন্টিনার টিভি তারকা ও উপস্থাপিকা মির্থার বরাতে ১২ বছর পর প্রকাশ পেল চাঞ্চল্যকর ওই কাহিনী।

মির্থার দাবি, ফুটবলার মাউরো ইকার্দির স্ত্রী ওয়ান্ডা নারার সঙ্গে শারীরিক সম্পর্কে লিপ্ত ছিলেন ম্যারাডোনা। নারার সঙ্গে ম্যারডোনার সম্পর্কের কথা বলতে গিয়ে এক রাতের অভিজ্ঞতার কথাও জানিয়েছেন মির্থা। সেবার বুয়েন্স আয়ার্স থেকে ২৫০ কিলোমিটার দূরে মার দেল প্লাটার একটি হোটেলে উঠেছিলেন মির্থা।

সেই হোটেলেরই অন্য একটি রুম বুক করেছিলেন ম্যারাডোনা ও নারা। ওই রাতে ম্যারাডনা-নারার ঘর থেকে অশ্লীল শব্দ শুনতে পান মির্থা। শুধু তাই নয়, পাশের ঘর থেকে বারবার আসবাবপত্র সরানোর শব্দও শুনতে পেয়েছিলেন তিনি। যার জেরে রাতে ঘুমোতেই পারেননি আর্জেন্টাইন এই টিভি তারকা।

এ নিয়ে মির্থা বলেন, ‘আমি সেদিন প্রেসিডেন্ট সুইট্যে ছিলাম। পাশের রুমেই ছিল ম্যারাডোনা-নারা। রাতে তাদের রুম থেকে অশ্লীল সব শব্দ আসতে থাকে। ওরা আসবাবও সরিয়েছে। কেন আসবাব সরিয়েছে, তা আমার জানা ছিল না। সে রাতে আমি একটুও ঘুমাতে পারিনি। সেই রাতে তাদের অবৈধ ও অদ্ভুত শারীরিক সম্পর্কের এক সাক্ষী ছিলাম আমি, যে শুধু শুনেই গেছে কিন্তু কিছু দেখেনি।’

কন্যা সন্তান ও স্ত্রী নারার সঙ্গে ইন্টার মিলানের আর্জেন্টাইন অধিনায়ক মাউরো ইকার্দি। ছবি: সংগৃহীত 

পর দিন নারার সঙ্গে এ বিষয়ে মির্থার কথাও হয়। মির্থার ভাষ্য, ‘পর দিন নারার সঙ্গে আমার দেখা হয়। সে সময় নারা আমাকে জিজ্ঞেস করে, “তোমার প্রোগ্রামে আমাকে আমন্ত্রণ করো না কেন?” এমন প্রশ্ন শুনে আমি অবাক হয়ে যাই। পরে পাল্টা জবাবে বলি, “তোমাকে? তুমি তো ম্যারাডোনার সঙ্গে হোটেলে উঠেছিলে। আর গতরাতে তোমরা আমাকে ঘুমোতে দাওনি।” এরপর

চার বছর আগে ইকার্দিকে বিয়ে করেন ৩১ বছর বয়সী নারা। তাদের দুটি কন্যা সন্তান রয়েছে। এর আগে সাবেক বার্সেলোনা তারকা ম্যাক্সি লোপেজের স্ত্রী ছিলেন নারা। ওই সংসারে তাদের তিনটি পুত্র সন্তান রয়েছে। মির্থার এমন দাবি নিয়ে অবশ্য এখনো কোনো জবাব দেননি নারা। মুখ খোলেননি ম্যারাডোনাও।