ইতালীতে ন্যাশনালরএক্সচেঞ্চ কোম্পানির চেয়ারম্যানের দায়িত্ব গ্রহন

প্রকাশিত

আসলামউজ্জামান,ইতালীঃ
ইতালীর ন্যাশনাল এhক্সচেঞ্চ কোম্পানির নব নির্বাচিত চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর ফরাজী দায়িত্বভার গ্রহন করেছে। গত ২২শে জানুয়ারী রোমে অবস্থিত কোম্পানির প্রধান কার্যালয়ে এই দায়িত্বভার গ্রহন করে।এ সময় কোম্পানির কর্মকরতারা তাকে ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানান।এ সময় দায়িত্ব বুঝিয়ে দেন কোম্পানির প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান ,সদ্য বিদায়ী চেয়ারম্যান হাজী মোঃ ইদ্রিস ফরাজী।
ইতালীর স্বনামধন্য প্রতিষ্ঠান ,বাংলাদেশ ব্যাংকের একাধিক বার পুরস্কার প্রাপ্ত ,ইতালী থেকে সর্ব প্রথম বৈধ ভাবে অর্থ প্রেরনের মানি এক্সচেঞ্চ ন্যাশনাল মানি এক্সচেঞ্চ কোঃ এস আরএল এর নব নির্বাচি চেয়ারম্যান মোঃ জাহাঙ্গীর ফরাজী বলেন
ইতিমধ্যে ন্যাশনাল এক্সচেঞ্চ বিদায়ী চেয়ারম্যান ইদ্রিস ফরাজীর দক্ষ পরিচালনায় এবং ভাইস চেয়ার জাহাঙ্গীর ফরাজীর সহযোগীতায় এই মানি এক্সচেঞ্চ শুধু ইতালী নয় ইউরোপ জুড়ে কার্যক্রম বিস্তৃতি লাভ করছে। নব নির্বাচিত চুয়ারম্যান দুই বারের মত সিআইপি নির্বাচিত হয়েছেন।এ ছাড়াও একাধিক বার বিসনেস এওয়ার্ড লাভ করেন তিনি।ন্যাশনাল এক্সচেঞ্চ শুধু ব্যবসায়িক ভাবেই সফল নয় বহু প্রবাসীর কর্মসংস্থানেরও সৃষ্টি করেছে।ব্যবসার পাশাপাশি রাজনৈতিক ও সামাজিক ভাবে সফল একজন ব্যক্তি জাসাঙ্গীর ফরাজী।ইতালী আওয়ামী লীগের প্রভাবশালী ভাইস প্রেসিডেন্ট,এবং ইতালীস্থ বৃহত্তর ফরিদপুর সমিতির সভাপতির দায়িত্ব পালন করছেন তিনি।এ ছড়াও বিভিন্ন সামাজিক কর্মকান্ডে তিনি জড়িত।নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর ফরাজী বলেন আমার উপরে অর্পিত দায়িত্ব সঠিক ভাবে পালন করে প্রতিষ্ঠানকে আরো সামনের দিকে এগিয়ে নিয়ে যাব। আমি ধন্যবাদ জানাচ্ছি সদ্য বিদায়ী চেয়ারম্যান হাজী ইদ্রিস ফরাজী এবং কোম্পানির পরিচালক ইকরাম ফরাজী,আনোয়ার ফরাজী,মনির এইচ ফরাজী,বাবুল মোরলের প্রতি যাদের দক্ষ পরিচালনায় আমরা শত ভাগ সফল হয়েছি। এই সফলতা অব্যাহত রাখতে আমি আপ্রান চেস্টা চালিয়ে যাব।ধন্যবাদ পরিচালক সহ সকল কর্মকর্তাদের প্রতি এবং আপনাদের সহযোগিতা একান্ত কাম্য।তিনি আরো বলেন ন্যাশনাল এক্সচেঞ্চ ইতালী নয় ইউরোপ নয় এখন মধ্যপ্রাচ্য নিয়ে যাওয়ার সপ্ন দেখছি সেটি অচিরেই বাস্তবায়ন করব।এ দিকে তিনি দায়িত্ব নেওয়ায় তার রাজনৈতিক শুভাকাঙ্ক্ষী সহ অনেকেই ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানান।
গত ১লা জানুয়ারী ঢাকার প্রধান কার্যালয়ে এক বোর্ড মিটিংয়ে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।