ইমরান এইচ সরকার আটক

প্রকাশিত

নিজস্ব প্রতিবেদক : বন্দুকযুদ্ধে প্রাণহানির প্রতিবাদে রাজধানীতে এক বিক্ষোভ মিছিল থেকে গণজাগরণ মঞ্চের মুখপাত্র ইমরান এইচ সরকারকে আটক করেছে র‌্যাবের একটি দল।

এ সময় বিক্ষোভকারীদের সঙ্গে র‌্যাবের ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে। বুধবার বিকাল চারটার দিকে ইমরানকে আটকের বিষয়টি নিশ্চিত করেন র‌্যাবের আইন ও গণমাধ্যম শাখার সিনিয়র সহকারী পরিচালক মিজানুর রহমান।

ইমরানকে আটক করা র‌্যাব-৩ এর অধিনায়ক এমরানুল হাসান জানান, অবৈধভাবে জনসমাবেশ করার অভিযোগে তাকে আটক করা হয়েছে।

মাদকবিরোধী অভিযানে বন্দুকযুদ্ধে প্রাণহানিতে বিচারবহির্ভুত হত্যা দাবি করে এর প্রতিবাদে শাহবাগে বিক্ষোভের ডাক দিয়েছিল গণজানগণ মঞ্চ। গত ৪ মে থেকে দেশজুড়ে শুরু হওয়া সাঁড়াশি অভিযানে ১৫০ জনেরও বেশি মানুষের মৃত্যুর তথ্য জানিয়েছে মানবাধিকার সংগঠন আইন ও সালিশ কেন্দ্র। সরকার এবং আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর দাবি, নিহত সবাই মাদকের কারবারে জড়িত।

বিএনপি সরকারে থাকাকালে আওয়ামী লীগ এই প্রক্রিয়ায় অপরাধী দমনের যেমন বিরোধিতা করেছে, তেমনি বর্তমান সরকারের আমলে এই কৌশলের বিরোধী বিএনপি। আবার আইন ও সালিশ কেন্দ্রের নির্বাহী পরিচালক সুলতানা কামাল তত্ত্বাবধায়ক সরকারের উপদেষ্টা থাকাকালেও এভাবে নিহত হয়েছেন সন্দেহভাজন অপরাধীরা।

বন্দুকযুদ্ধ বা ক্রসফায়ারের বিষয়ে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর বর্ণনা কখনও বিশ্বাসযোগ্য ছিল না। আর গত ২৬ মে কক্সবাজারে টেকনাফ পৌরসভার কাউন্সিলর একরামুল হক নিহতের ঘটনা এই বিতর্ককে আরও উস্কে দিয়েছে।

একরামুলের স্ত্রী একটি অডিও রেকর্ড প্রকাশ করে দাবি করেছেন, এটি তার স্বামীকে হত্যার সময়কার। ওই রেকর্ডে এটা স্পষ্ট যে, একজন মানুষকে একতরফা গুলি করে হত্যা করা হয়েছে। কোনো বন্দুকযুদ্ধ নয়।

শাহবাগ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আবুল হাসান  বলেন, ‘বিকাল সাড়ে চারটার দিকে তাকে র‌্যাব আটক করেছে বলে জেনেছি। তবে ছাত্র ইউনিয়নের বিক্ষোভ মিছিলের বিষয়ে থানাকে অবহিত করা হয়নি। তাই এই বিষয়ে পুলিশের বিস্তারিত কিছু জানা ছিল না।