ওয়ারীতে আজ থেকে বাড়ি বাড়ি গিয়ে স্যাম্পল কালেকশন

প্রকাশিত

করোনা সংক্রমণ রোধে ৪ জুলাই থেকে রাজধানীর ওয়ারীতে চলছে ২১ দিনের লকডাউন। কিন্তু ১২ দিনের মাথায় এসেও সংক্রমণ কমছে না।

লকডাউন শুরুর আগে এখানে করোনা রোগীর সংখ্যা ছিল ৪৬ জন। সংক্রমণের হার ছিল ৪০ শতাংশ। এখনও সংক্রমণের হার ৪০ শতাংশই রয়েছে।

এছাড়া নমুনা সংগ্রহের হারেও ধীরগতি লক্ষ্য করা যাচ্ছে। তাই আজ থেকে লকডাউন এলাকার বাড়ি বাড়ি গিয়ে নমুনা সংগ্রহ করা হবে। বৃহস্পতিবার ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের নগর ভবনে ওয়ারী লকডাউন নিয়ে কেন্দ্রীয় বাস্তবায়ন কমিটির দ্বিতীয় পর্যালোচনা সভায় এসব তথ্য জানানো হয়।

এ বিষয়ে স্থানীয় কাউন্সিলর সারোয়ার হোসেন আলো বলেন, নমুনা সংগ্রহের জন্য ২৮টি টিম গঠন করা হয়েছে। এসব টিমের সদস্যরা শুক্রবার থেকে বাড়ি বাড়ি গিয়ে স্যাম্পল কালেকশন করবেন। সম্পূর্ণ বিনামূল্যে এসব স্যাম্পল পরীক্ষা করা হবে।

তিনি জানান, তার তত্ত্বাবধানে লকডাউন এলাকার ৬০০ লোককে প্রতিদিন তিন বেলা খাবার সরবরাহ করা হচ্ছে। প্রতিদিন সকালে প্রায় ৩০০ পরিবারের মাঝে বিনামূল্যে সবজি সরবরাহ করা হচ্ছে। ওয়ারীর লকডাউনের বিষয়ে ঢাকা দক্ষিণের মেয়র ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নূর তাপস বলেন, লক্ষাধিক লোকের এলাকায় ১১ দিনে মাত্র ১৪৮ জনের স্যাম্পল সংগ্রহ করা হয়েছে। এটা বাস্তবিক চিত্রের প্রতিফলন বলে মনে হয় না। তাই স্যাম্পল দিতে জনগণকে আরও বেশি সচেতন করতে হবে। ওয়ারীতে আরও কঠোরভাবে লকডাউন পালনের নির্দেশ দেয়া হয়েছে বলেও জানান তিনি।