কুড়িগ্রামের রৌমারীতে এসিল্যান্ড নেই খারিজ ভোগান্তি চরমে

প্রকাশিত

রৌমারী (কুড়িগ্রাম) সংবাদদাতাঃ কুড়িগ্রামের রৌমারীতে দীর্ঘদিন ধরে এসিল্যান্ড নেই। চরম ভোগান্তিতে সাধারণ মানুষ। ইতি পূর্বে বছরের পর বছর রৌমারীতে এসিল্যন্ডি না থাকলেও গত ২৩ নভেম্বর ২০১৪ সালে সহকারী কমিশনার (ভ’মি) অফিসার হিসেবে শঙর কুমার বিশ্বাস ২৪ এপ্রিল ২০১৬ পর্যন্ত দায়িত্ব পালন করেন। তিনি ২০১৬ সালে বদলী হলে অদ্যবধি প্রায় ২ বছর যাবত রৌমারীতে সহকারী কমিশনার (ভূমি) পদটি শুন্য রয়েছে। এসিল্যান্ড না থাকায় ভুমির মালিক, জমি-ক্রেতা বিক্রেতা উভয়ই চরম ভোগান্তিতে পড়েছে। ভুমি অফিস সুত্রে জানাযায়, শতশত জমি খারিজ ফাইল ফাইল বন্ধি হয়ে রয়েছে। খারিজের অভাবে সাধারণ মানুষের মাঝে প্রশাসনের প্রতি ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে।এব্যাপারে খারিজ আবেদন কারীরা মৌখিক অভিযোগ ও আতœনাথ করে বলেন, মেয়ের বিয়ে, সাংসারিক াভাব-অনটন,জমির কাগজপত্র হাল নাগাদ করতে খারিজ জরুরী। কিন্ত অফিসার না থাকায় মাসের পর মাস খারিজের অফেক্ষায় থাকতে হয়। এসিল্যান্ড না থাকায় অতিরিক্ত দায়িত্ব পালন করেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা।এব্যাপারে রৌমারী উপজেলা নির্বাহী অফিসার দীপঙর রায় বলেন, আমি আমার দপ্তরের কাজ করে যতটুকু সময় পাই তার মাঝে ভ’মি অফিসের কিছু কাজ করি। তবে এলাকা বাসীর দাবী রৌমারীতে দ্রুত একজন সহকারী কমিশনার (ভুমি) দেওয়া হউক।