খবর পড়বে এরিকা

প্রকাশিত

বিজ্ঞান-প্রযুক্তি ডেস্ক : মানুষের বিকল্প হিসেবে রোবটকে অনেকে ভাবতে না পারলেও, যত দিন যাচ্ছে দেখা যাচ্ছে, মানুষের বিকল্প হিসেবে রোবটের ব্যবহার বেড়ে চলেছে।

এবার জাপানে একটি টেলিভেশনে মানুষের পরিবর্তে সংবাদ উপস্থাপক হতে যাচ্ছে মানবসাদৃশ্য রোবট ‘এরিকা’। কথাবার্তায় উন্নত কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা প্রযুক্তির এই রোবটকে আগামী এপ্রিল থেকে সংবাদ পাঠ করতে দেখা যাবে।

এরিকার নির্মাতা ওসাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইন্টেলিজেন্ট রোবোটিক্স ল্যাবরেটরির পরিচালক ড. হিরোশি ইশিগুরোর মতে, ‘রোবটটি দেখতে এতোটাই বাস্তব সম্মত যে, জীবন্ত মানুষ বলেই মনে হতে পারে। এরিকার নতুন চাকরির বিষয়ে খুব কম তথ্যই প্রকাশ করা হয়েছে। তবে ড. ইশিগুরো জানিয়েছেন, প্রদত্ত টেক্সট দেখে কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা প্রযুক্তি ব্যবহার করে সংবাদ পাঠ করবে সংবাদ পাঠিকা দায়িত্বের রোবট এরিকা।

তিনি বলেন, ‘আমরা একজন সংবাদ উপস্থাপকের পরিবর্তে এই রোবটটিকে ব্যবহার করতে যাচ্ছি।’

ড. ইশিগুরো বলেন, তিনি ২০১৪ সাল থেকে সংবাদ উপস্থাপক রোবট তৈরিতে কাজ করে আসছেন। সংবাদ উপস্থাপনা ছাড়াও স্বয়ংক্রিয় গাড়ির যাত্রীদের সঙ্গে কথা বলতেও রোবটটির কন্ঠ ব্যবহার করা যেতে পারে।

জাপানে সর্বোচ্চ বিনিয়োগকৃত বৈজ্ঞানিক প্রকল্পগুলোর মধ্যে অন্যতম ‘জেএসটি এরোটো’ প্রকল্পের আওতায় এরিকাকে তৈরি করা হয়েছে। এরিকা যদিও হাত নাড়াচাড়া করতে পারে না, কিন্তু কোথা থেকে শব্দ আসছে এবং কে তাকে প্রশ্ন করছে তা জানতে পারে। ১৪টি ইনফ্রারেড সেন্সর এবং ফেসিয়াল রিকগনেশন প্রযুক্তি ব্যবহার হওয়ায়, রুমে উপস্থিত মানুষকে এরিকা ট্র্যাক করতে পারে।

এরিকার নকশাকারী ড. ডিলান গ্লাস বলেন, ‘এরিকা কৌতুক ও বলতে পারে এবং তা একেবারে অপ্রাসঙ্গিক নয়। আমরা চাই এমন একটি রোবট যেটি ভাবতে পারে, কাজ করতে পারে এবং সবকিছু নিজস্বভাবে সম্পূর্ণ করতে পারে।’

ডা. ইশিগুরো অবশ্য এই প্রথমবারের মতো সংবাদ উপস্থাপক রোবট তৈরি করেননি। এর আগেও তিনি এ ধরনের খুবই বাস্তবসম্মত দুটো রোবট নির্মাণ করেছিলেন। ২০১৪ সালে তার নির্মাণ করা ‘কোডোমরয়েড’ ও ‘অটোনারয়েড’ নামক সংবাদ উপস্থাপক রোবট দুটো বর্তমানে টোকিও জাদুঘরে রয়েছে। আর এই দুটো রোবটের আরো উন্নত সংস্করণ বর্তমান এরিকা।

অন্যদিকে, মাইক্রোসফট ২০১৫ সালে প্রথম তৈরি করে ‘শিয়াওলেস’ নামের একটি সংবাদ উপস্থাপক রোবট এবং এটিকে চীনের মর্নিং নিউজ টিভি চ্যানেলে নিয়োগ দেয়া হয়। স্মার্ট ক্লাউড এবং বিগ ডেটার মাধ্যমে ডিপ লার্নিং কৌশল ব্যবহার করে, লাইভ সম্প্রচারের সময় শিয়াওলেস আবহাওয়ার তথ্য বিশ্লেষণ করে থাকে।

তথ্যসূত্র : ডেইলি মেইল