খাদ্য সংরক্ষণাগার নির্মাণ প্রকল্পে জটিলতার ব্যাখ্যা দাবি

প্রকাশিত

বিশেষ প্রতিবেদকঃ আধুনিক খাদ্য সংরক্ষণাগার নির্মাণ প্রকল্পের জটিলতার ব্যাপারে খাদ্য মন্ত্রণালয়ের ব্যাখ্যা জানতে চেয়েছে অনুমিত হিসাব সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটি।

রোববার জাতীয় সংসদে কমিটির ১৮তম বৈঠকে পরবর্তী সভায় এ বিষয়ে প্রতিবেদন দেওয়ার সুপারিশ করা হয়েছে।

বৈঠকে জানানো হয়, বিশ্বব্যাংকের অর্থায়ন সংক্রান্ত জটিলতার কারণে ২০১৪ সালের জানুয়ারিতে শুরু হওয়া আধুনিক খাদ্য সংরক্ষণাগার প্রকল্পের কাজ মাত্র ৩৮ শতাংশ এগিয়েছে। একই সঙ্গে কমিটি জানতে পারে, ১ দশমিক ০৫ লাখ মেট্রিক টন ধারণক্ষমতার নতুন খাদ্য গুদাম প্রকল্পের কাজ চলতি বছরের জুনে শেষ হওয়ার কথা থাকলেও এখন পর্যন্ত তার ৪৫ শতাংশ বাস্তবায়িত হয়েছে। কমিটির সদস্যরা এ নিয়ে অসন্তোষ প্রকাশ করেন।

একই বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী প্রতিশ্রুত পানিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের যেসব প্রকল্পের কাজ নির্ধারিত সময়ের মধ্যে শেষ হয়নি বা এখনো শুরু করা যায়নি, সেগুলো নিয়েও আলোচনা হয়। এসব প্রকল্পের কাজ দ্রুত করার সুপারিশ করা হয়েছে।

নূর-ই-আলম চৌধুরীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত কমিটির বৈঠকে অংশ নেন সদস্য মো. আব্দুর রাজ্জাক, এ বি তাজুল ইসলাম, ইউসুফ আবদুল্লাহ হারুন, শাহানারা বেগম, এ টি এম আব্দুল ওয়াহহাব ও ওয়াসিকা আয়শা খান।

এ সময় পানিসম্পদ ও কৃষি মন্ত্রণালয়ে সিনিয়র সচিব, স্থানীয় সরকার বিভাগের সচিব, গৃহায়ণ ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয়ের সচিব, খাদ্য মন্ত্রণালয়ের ভারপ্রাপ্ত সচিব, গণপূর্ত অধিদপ্তরের প্রধান প্রকৌশলী, চট্টগ্রাম ও খুলনা উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যানসহ মন্ত্রণালয় ও জাতীয় সংসদ সচিবালয়ের কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

বৈঠকে কমিটির সদস্যরা যেসব উন্নয়ন প্রকল্পে জমি অধিগ্রহণের প্রয়োজন আছে সেসব প্রকল্প হাতে নেওয়ার আগে জমি অধিগ্রহণ করার পরামর্শ দেন। গৃহায়ণ ও গণপূর্ত  মন্ত্রণালয়ের যেসব গৃহীত প্রকল্প বাস্তবায়ন করা বা নির্ধারিত সময়ের মধ্যে শেষ করা সম্ভব নয় সেগুলোর ব্যাপারে কমিটিকে আগামী মার্চের মধ্যে অবহিত করতে বলা হয়েছে। একই সময়ের মধ্যে চট্টগ্রাম, রাজশাহী ও খুলনা উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের সব প্রকল্পের বিস্তারিত বিবরণ দিতে বলা হয়।