গডফাদাররা চিহ্নিত হলেও গ্রেপ্তার হচ্ছে না : মো. জামাল উদ্দিন আহমেদ

প্রকাশিত

নিজস্ব প্রতিবেদক: মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মো. জামাল উদ্দিন আহমেদ বলেছেন, ‘মাদকব্যবসার গডফাদাররা চিহ্নিত হলেও তাদের সঙ্গে মাদক না থাকায় গ্রেপ্তার করা যাচ্ছে না। একইসঙ্গে নানা সীমাবদ্ধতার কারণে অধিদপ্তরের একার পক্ষে মাদক নির্মূল করা দুরূহ হয়ে পড়েছে।’

শুক্রবার দুপুরে তেজগাঁও মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের প্রধান কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা বলেন।

অধিদপ্তর প্রধান বলেন, ‘পুলিশের সঙ্গে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর অন্য ইউনিট সহায়তা করলে মাদক নির্মূল করা সম্ভব হবে। এজন্য নানা সহযোগিতা চাওয়াও হয়েছে। আবার চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ীদের গ্রেপ্তার করে কারাগারে পাঠানো হলেও তারা কিছু দিন পর বের হয়ে আসছে। করছে পুরোনো ব্যবসা।’

তিনি বলেন, ‘মাদক নির্মূলে বৃহস্পতিবার রাজধানীর বিভিন্ন এলাকায় সাঁড়াশি অভিযান পরিচালনা করে ৩৬ জনকে আটক করা হয়।’

সংবাদ সম্মেলনে অধিদপ্তরের বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, বৃহস্পতিবার রাজধানীর কমলাপুর রেলস্টেশন, সোহরাওয়ার্দী উদ্যান, চানখারপুল, গেন্ডারিয়া, টিটিপাড়া, খিলগাঁও, পুরানা পল্টন, ভাটারা, মতিঝিল, আরামবাগ, যাত্রাবাড়ী, দক্ষিণ বনশ্রী, ধানমন্ডি, মোহাম্মদপুর, মিরপুর, তেজঁগাও রেলওয়ে বস্তি, গুলশান, উত্তরা, বেড়িবাঁধ ও গাবতলী এলাকায় অভিযান পরিচালনা করা হয়। এ সময় ১ হাজার ৯৬৫ পিস ইয়াবা, ২ কেজি ৬৪০ গ্রাম গাঁজা, ৫ বোতল ফেনসিডিল,  বিদেশি মদ ৭ বোতল, বিয়ার ৫ ক্যান ও একটি পিস্তল উদ্ধার করা হয়। এসব ঘটনায় পৃথক থানায় মামলা হয়েছে।’