গর্ভবতী না হয়েও মাতৃত্বকালীন ভাতায় নারী ইউপি সদস্যসহ তার পরিবারের ৩ জনের নাম

প্রকাশিত

চাঁপাইনবাবগঞ্জ প্রতিনিধি-

চাঁপাইনবাবগঞ্জের গোমস্তাপুরে গর্ভবতী না হয়েও মাতৃত্বকালীন ভাতার তালিকায় এক নারী ইউপি সদস্যসহ তার পরিবারের তিন সদস্যের নাম অন্তর্ভূক্তির অভিযোগ পাওয়া গেছে।

এনিয়ে গোমস্তাপুর উপজেলার রহনপুর ইউনিয়ন পরিষদের সংরক্ষিত নারী ইউপি সদস্য (১, ২ ও ৩ ওয়ার্ড ) রুলি খাতুনের বিরুদ্ধে জেলা প্রশাসক ও উপজেলা নির্বাহী অফিসার বরাবর লিখিত অভিযোগ করেছেন এক ভুক্তভোগীর শ্বশুর মাজেদ আলী। গর্ভবতী না হওয়া সত্বেও ভূয়া প্রত্যয়ন ব্যবহার করে ভাতা তালিকায় নাম অন্তর্ভূক্তি করা হয়েছে বলে অভিযোগ করা হয়েছে।

অভিযোগে জানা গেছে, জনৈক মাজেদ আলী তার ছেলের বউ গর্ভবতী হওয়ায় নারী ইউপি সদস্য রুলি খাতুনের কাছে কয়েকবার ভাতা মঞ্জুরির জন্য আবেদন করা হলে তিনি বলেন, এবার বরাদ্দের পরিমাণ কম থাকায় তা পূরণ হয়ে গেছে, আর তালিকাভুক্ত করা সম্ভব হবে না। এ ঘটনা জানার জন্য রহনপুর ইউনিয়ন পরিষদের প্যানেল চেয়ারম্যান-১ বাইরুল ইসলাম এর কাছে মাজেদ আলী গেলে ২০১৯-২০ অর্থবছরে ৭৯ জনের নাম দরিদ্র মাতৃত্বকালিন ভাতার তালিকা আছে বলে জানতে পারেন। ভাতা’র তালিকায় নারী ইউপি সদস্য রুলি খাতুনের নাম অন্তর্ভূক্তির বিষয়টি প্রকাশ পায়।

পরবর্তীতে জানা যায়, ইউপি সদস্য রুলি খাতুন তার আপন বড় ভাই রহনপুর শিল্প ও বণিক সমিতির সহ-সভাপতি’র স্ত্রী মোসাঃ মাহাবুবা বেগম (৩৬) ও তার অপর চাচাতো ভায়ের স্ত্রী মোসাঃ জলি খাতুন (২৩) গর্ভবতী না হলেও ভূয়া প্রত্যয়ন ব্যবহার করে তাদের ভাতা তালিকাভুক্ত করিয়েছেন।

এ ব্যাপারে রহনপুর ইউনিয়ন পরিষদ প্যানেল চেয়ারম্যান-১ মোঃ বাইরুল ইসলাম জানান, ওই নারী ইউপি সদস্যসহ আরো ২জনের ভূয়া তালিকার তথ্য জানতে পেরেছেন তিনি। এদিকে অভিযুক্ত রুলি খাতুনের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, তিনি কোন অনিয়ম করেননি। যারা অভিযোগ করেছে শত্রুতাবশত করেছে।

এদিকে উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা বরুণ কুমার পাল জানান, উপজেলা নির্বাহী অফিসার যে নির্দেশনা দিবেন, সে অনুযায়ী তার বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।