গাজীপুরের টঙ্গীতে পৃথকস্থানে শিশুসহ দুইজনের রহস্যজনক মৃত্যু

প্রকাশিত

শেখ রাজীব হাসান,গাজীপুরঃ গাজীপুরের টঙ্গীর টিএনটি কোলনীতে পানিতে পড়ে মো. হোসেন নামের (৭) বছরের এক শিশুর মৃত্যু হয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার বেলা ২টায় টিএনটি এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। নিহত হোসেন গাজীপুর জেলার টঙ্গী পুর্ব থানার টিএনটি এলাকার মো. রুহুল আমিনের ছেলে।

জানা যায়, টিএনটি কোলনী স্কুলের ভবনের কাজ করার জন্য কলামের জন্য খনন করা গর্তে জমে থাকা পানিতে পরে থাকতে দেখে কাউসার নামের এক ব্যাক্তি তাকে পানি থেকে তুলে টঙ্গী আহসান উল্লাহ্‌ মাষ্টার জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে এলে ডাক্তার তাকে মৃত ঘোষণা করে।

নিহত শিশুর মা পুতুল জানান, বৃহস্পতিবার প্রতিবেশি ফাতেমার বাসায় পিকনিকের আয়োজন করা হয়। দুপরের ওই বাসায় তার সন্তানদের নিয়ে খাবার খেতে যায়। খাবার শেষে শিশু হোসেন মাকে বলে বাসায় চলে যায়। কিছুক্ষন পর সেও বাসায় গিয়ে সন্তানদের না পেয়ে আশপাশে অনেক খোজাখুজি করে। পরে আশপাশের লোকজনের কাছে ছেলের পানিতে পরার খবর পেয়ে হাসপাতালে ছুটে এসে ছেলেকে মৃত অবস্থায় দেখতে পায়।

এসময় সাংবাদিকরা ফুটেজ ও তথ্য সংগ্রহ করতে গেলে মৃত হোসেনকে নিয়ে আসা কাউসার ও স্থানীয় কিছু ছেলে তথ্য প্রদানে বাধা দেয় এবং চড়াও হয় যা অত্যান্ত রহস্যজনক।

অপরদিকে পাগাড় টেকপাড়া এলাকার সুলতান মিয়ার বাড়িতে বিকাল সাড়ে তিনটায় বিদ্যুৎস্পুষ্টে আব্দুস সালাম (৫৫) নামে এক ব্যক্তির মৃত্যু হয়েছে। নিহত সালাম নেত্রকোনা জেলার সদর থানার নাগড়ার আবু তাহেরের ছেলে। তিনি তিন মেয়ে ও এক পুত্র সন্তানের জনক ছিলেন। তিনি টেকপাড়া এলাকায় ভেন গাড়ীতে করে সবজী বিক্রয় করে সংসার চালাতেন।

নিহতের স্ত্রী ও সন্তানরা জানান, নিহত সালাম তার বাড়ীওয়ালাকে বেশ কয়েকবার ঘরের চালের উপর দিয়ে যাওয়া বিদ্যুতের তার সরানোর জন্য অনুরোধ করেন কিন্তু বাড়ীওয়ালা সুলতান মিয়া কোন কিছুর ব্যাবস্থা না করেই হজ্বের জন্য দেশ ত্যাগ করেন।

ঘটনাস্থল পরিদর্শনে গিয়ে বাড়ীর চালে অনেক গুলো বিদ্যুতের তার দেখা যায় আর এতে পরবর্তীতে আরো বিপদ হতে পারে।

এ ঘটনায় টঙ্গী পুর্ব থানার ওসি মো. কামাল হোসেন জানান, ঘটনাটি শোনে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে।