গাজীপুরের টঙ্গীর ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়ক ও দেওড়া এলাকায় নারীসহ দু’লাশ উদ্ধার

প্রকাশিত

শেখ রাজীব হাসান আকাশ,গাজীপুর: গাজীপুরের টঙ্গীর ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়ক ও দেওড়া এলাকা থেকে টঙ্গী থানা পুলিশ একটি ভাড়া বাড়িতে এক নারীসহ দুটি লাশ উদ্ধার করেছে। এসব ঘটনায় থানায় পৃথক দুটি অপমৃত্যু মামলা দায়ের হয়েছে।
পুলিশ জানায়, সকাল সাড়ে ৬ টায় প্রাণ কোম্পানীর প্লাষ্টিক বিভাগের প্রকৌশলী সাইফুদ্দিন আহমেদ টঙ্গী আউচপাড়ার ভাড়া বাসা থেকে মটরসাইকেল নিয়ে নরসিংদীর কারখনায় যাচ্ছিলেন। এ সময় তিনি চেরাগআলী মার্কেটের আফতাব সিএনজির সামনে পৌছলে ঢাকাগামী একটি অজ্ঞাত গাড়ি চাপা দেয়। গাড়ির চাঁকায় পিষ্ঠ হয়ে তার মাথা থেতলে গিয়ে তিনি ঘটনাস্থলেই মারা যান। খবর পেয়ে পুলিশ লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আবেদনের প্রেক্ষিতে নিহতের পরিবারের সদস্যদের কাছে হস্তান্তর করেন।

তিনি মানিকগজ্ঞ জেলার দৌলতপু থানা এলাকার মহিউদ্দিন আহমদের ছেলে।

অপর দিকে টঙ্গী দেওড়া এলাকার বাবুল সিকদারের বাড়ির ভাড়াটিয়া ভবানী কান্ত বর্মনের স্ত্রী মিশরী দাস (২৬) ফাঁসীতে ঝুলে আত্মহত্যা করেছে।
আত্মহননকারীর স্বামী জানান, শনিবার রাত ১০ টায় তিনি তার স্ত্রীকে বাসায় রেখে রাতের সিফটে কাজে যান। তিনি স্থানীয় সিপি পল্ট্রিতে সুপার ভাইজর হিসেবে কাজ করেন। পরের দিন রবিবার সকাল সাড়ে ৭টায় কাজ থেকে বাসায় ফিরে তার স্ত্রীকে ডাকাডাকি করেন। অনেক চেষ্টার পর দরজা না খুললে ঘরের জানালা দিয়ে দেখতে পান যে তার স্ত্রী মিশরী ফ্যানের সাথে ঝুলন্ত আছে । পরে বাড়ির অন্যরা থানায় খবর দিলে পুলিশ লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যায়। তার লাশও বিনা ময়নাতদন্তে স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।
মিশরী দাস গাজীপুরের টঙ্গী থানা এলাকার মরকুন গ্রামের কলংক কুমার দাসের মেয়ে।