গাজীপুরে বিয়ের প্রলোভনে গৃহকর্মীকে ধর্ষণ, ধর্ষক আটক !

প্রকাশিত

শেখ রাজীব হাসান, বিশেষ সংবাদদাতাঃ গাজীপুরের টঙ্গীর মধ্য আরিচপুর শেরেবাংলা রোডে ১৮ বছর বয়সী গৃহকর্মীকে বিয়ের প্রলোভনে ধর্ষণের অভিযোগে ধর্ষক হাবিবুর রহমান হাবিবকে  (২২) গত সোমবার হবিগঞ্জ থেকে গ্রেফতার করেছে টঙ্গী পূর্ব থানা পুলিশ। টঙ্গী পূর্ব থানা পুলিশ জানায়, টঙ্গীর মধ্য আরিচপুর শেরে বাংলা রোডের মোশারফ হোসেনের বাসায় গৃহকর্মীর কাজ করতো মেয়েটি।

ওই বাসার পাশেই একটি হোটেলে বাবুর্চি হিসেবে কাজ করতো হাবিবুর রহমান হাবিব। তারা উভয়েই পাশাপাশি বাসায় থাকায় তাদের দুজনের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে। প্রেমের সম্পর্কের সুবাধে গৃহকরমীকে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে তার সাথে অবৈধ মেলামেশা করে আসছিলো হাবিব। একপর্যায়ে গত ৪ জানুয়ারি গৃহকরমী তার বাসায় সিলিং ফ্যানের সাথে ওড়না পেঁচিয়ে গলায় ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা করে।

পরে বাড়ির মালিক ৯৯৯ এর মাধ্যমে টঙ্গী পূর্ব থানা পুলিশকে খবর দিলে থানা পুলিশ কক্ষের দরজা ভেঙ্গে নিহতের লাশ উদ্ধার করে। এঘটনায় গত ৪ জানুয়ারি টঙ্গী পূর্ব থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা (নং-০১/২০২০) দায়ের করা হয়। পরে পুলিশ নিহতের লাশ ময়নাতদন্তের জন্য গাজীপুর শহিদ তাজউদ্দিন আহমেদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করেন।ময়নাতদন্তে ভিকটিম নূরুন্নাহার যৌন নির্যাতনের শিকার হয়েছেন মর্মে
রিপোর্ট আসে।

এঘটনায় গত সোমবার টঙ্গী পূর্ব থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে একটি মামলা (নং-৩৭) দায়ের করা হয়। পরে গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের উপ-পুলিশ কমিশনার অপরাধ (দক্ষিণ) ইলতুৎ মিশের নির্দেশে
মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই জুলহাস উদ্দিন ওই দিনই তথ্য প্রযুক্তির মাধ্যমে হবিগঞ্জ জেলার মাধবপুর থানার পুড়াইখলা গ্রাম থেকে হাবিবুর রহমান হাবিবকে গ্রেফতার করে টঙ্গী পূর্ব থানায় নিয়ে আসে।

এব্যাপারে গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের উপ-পুলিশ কমিশনার অপরাধ (দক্ষিণ) ইলতুৎ মিশ বলেন, অন্যায়কারী নিজেকে যতটাই চতুর ভাবুক আইনকে ফাকি দেওয়া ওত সহজ না। অন্যায়কারীকে খুঁজে বের করা হবে। তথ্য প্রযুক্তির মাধ্যমে মামলার আসামী ধর্ষক হাবিবুর রহমান হাবিবকে হবিগঞ্জ থেকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

Be the first to write a comment.

Leave a Reply