গাজীপুরে যুবলীগ নেতা সাইফুল ইসলামের উদ্যোগে খাদ্য বিতরণ

প্রকাশিত

শেখ রাজীব হাসান,নিজস্ব প্রতিবেদকঃ গাজীপুরের মাটি ও মানুষের নেতা যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী আলহাজ্ব মো: জাহিদ আহসান রাসেল, যুবলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি শেখ ফজলে শামস পরশ ও সাধারণ সম্পাদক মাইনুল হাসান খান নিখিলের নির্দেশনায় গাজীপুর মহানগর যুবলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক, গোল্ডেন ড্রীমস এসোসিয়েশনের চেয়ারম্যান সাইফুল ইসলামের ব্যক্তিগত উদ্যোগে দুই হাজার পরিবারকে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করা হয়েছে।

গত শনিবার থেকে গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের ৫৩নং ওয়ার্ড কাঁঠালদিয়া এলাকায় ৫শত পরিবার ও গাজীপুরের বিভিন্ন ওয়ার্ডে ১৫শত গরিব, অসহায় ও নিম্ন আয়ের পরিবারসহ মোট ২ হাজারের ও অধিক পরিবারের মাঝে ৫ কেজি চাউল, ৩ কেজি পিয়াজ, ৩ কেজি আলু, ১লিটার তেল, ১ কেজি ডাল ও চিকিৎসা সামগ্রী বিতরণ করা হয়েছে। এ কার্যক্রম বিরতিহীনভাবে চলতে থাকবে। সমাজে কেউ নাখেয়ে মারা যাবেনা।

এছাড়াও বঙ্গবন্ধুর জন্মশত বার্ষিকী উপলক্ষে গাজীপুর মহানগরের বিভিন্ন ওয়ার্ডে গ্রোল্ডেন ড্রীমস এসোসিয়েসনের মাধ্যমে বাড়ি নির্মাণ করে দেওয়া ৮৩টি পরিবারের মাঝেও খাবার বিতরণ করা হয়েছে।

এ কার্যক্রম পরিচালনায় সার্বিক তত্ত্ববধানে ছিলেন, যুবলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য মো: ইসমাইল হোসেন, কাজী কামাল হোসেন,  গাজীপুর মহানগর যুবলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক সাইফুল ইসলামের স্নেহের ছোট ভাই টঙ্গী পশ্চিম থানা যুবলীগ নেতা শফিকুল ইসলাম শিমুল, যুবলীগ নেতা শরীফ উদ্দিন, ওয়াদুদুর রহমান, আল আমিন হোসেন, আহাম্মদ হোসেন, সুমন তাজ, ছাত্রলীগ নেতা আকরাম হোসেন প্রমুখ।
গাজীপুর মহানগর যুবলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক সাইফুল ইসলাম জানায়, গাজীপুরের বিভিন্ন ওয়ার্ডের করোনা ভাইরাসের কারণে হোম কোয়ারেন্টেনে ও লকডাউনে রয়েছে। তাদের আয় রোজগার বন্ধ। তাই নিম্ন আয়ের মানুষের কথা চিন্তা করে গাজীপুর মহানগরের বিভিন্ন ওয়ার্ডে যুবলীগ ও গাজীপুর মহানগর যুবলীগসহ আমার ব্যক্তিগত উদ্যোগে ২ হাজার পরিবারের মাঝে সাধ্যমত খাবার ও চিকিৎসা সামগ্রী বিতরণ করার উদ্যোগ নিয়েছি। আমরা গাজীপুরে কোন নিম্ন আয়ের মানুষকে খাবারে কষ্ট করতে দিবনা। আমার ব্যক্তিগত উদ্যোগে পর্যাপ্ত খাবার মজুত রেখেছি। এছাড়াও বিভিন্ন ওয়ার্ড ও মহানগর যুবলীগের অন্য নেতা কর্মীরা তো আছেই। আমি আশা করছি যার যতটুকু সাধ্য আছে সবাই গরিব, অসহায়, দুস্থ ও নিম্ন আয়ের মানুষের পাশে এসে দাঁড়াবেন। এ কার্যক্রম বিরতিহীনভাবেচলতে থাকবে। সমাজে কেউ নাখেয়ে মারা যাবেনা। তবে আপনারা সরকারের দেওয়া সকল নির্দেশনা মেনে চলবেন।