গান বাজানোর প্রতিবাদের প্রতিশোধ নিতে বৃদ্ধকে হত্যা

প্রকাশিত

নিজস্ব প্রতিবেদক: রাজধানীতে বিয়ের অনুষ্ঠানে উচ্চ স্বরে গান বাজানোর প্রতিবাদ করায় নাজমুল হক (৬৫) নামের এক বৃদ্ধকে হত্যার অভিযোগে দায়ের করা মামলায় সাজ্জাত হোসেন নামের এক ব্যক্তি আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন।

সোমবার এক দিনের রিমান্ড শেষে আসামি সাজ্জাত হোসেনকে আদালতে হাজির করে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি রেকর্ড করার আবেদন করেন মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ওয়ারী থানার পুলিশের উপ-পরিদর্শক হারুন উর রশিদ।

ঢাকা মহানগর হাকিম মোহা. আহসান হাবীবের আদালতে সাজ্জাত হোসেন স্বীকারোক্তিমূলক জাবানবন্দি দেন। পরে তাকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

জবানবন্দিতে সাজ্জাদ হোসেন জানান, বৃহস্পতিবার বাসার ছাদে উচ্চ স্বরে গান বাজানো হয়। গান বাজানোর কারণে অসুবিধা হলে নাসিমুল হকের (নিহতের ছেলে) সঙ্গে কথা কাটাকাটি হয়। এক পর্যায়ে নাসিমুলের বাধার মুখে রাতে গান বাজানো বন্ধ রাখা হয়। এ বিষয়ে পরিবারের অনেকই অসন্তোষ প্রকাশ করে। পারিবারিভাবে সিদ্ধান্ত নিয়েই সকালে নাসিমুল হককে বাসার নিচে ডেকে আনা হয়। তখন নাসিমুলের সঙ্গে তার মা, বাবা ও বোন নিচে নেমে আসেন। একপর্যায়ে আমি (সাজ্জাত হোসেন), হৃদয়সহ কয়েকজন নাসিমুলকে কিল-ঘুষি মারতে থাকি। এ সময় নাজমুল হক ছেলেকে বাঁচাতে আসেন। তখন নাজমুল হককেও এলোপাথারি কিল-ঘুষি মারলে তিনি মাটিতে লুটিয়ে পড়েন।

আদালত সূত্র এসব তথ্য নিশ্চিত করেছে।

২০ জানুয়ারি সাজ্জাত হোসেনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন আদালত।

প্রসঙ্গত, বিয়ের অনুষ্ঠানে উচ্চ স্বরে গান বাজানোর প্রতিবাদ করায় গোপীবাগের রামকৃষ্ণ মিশন রোডের ৪৪ নম্বর বাড়ির সামনে ১৯ জানুয়ারি সকালে পিটিয়ে হত্যা করা হয় নাজমুল হক (৬৫) নামের এক বৃদ্ধকে। তিনি অবসরপ্রাপ্ত সরকারি কর্মকর্তা ছিলেন।