গৌরনদীতে চোরাই ইজিবাইক বিক্রিকালে যুবক আটক ! পালিয়েছে দুই সহযোগী

প্রকাশিত

গৌরনদী (বরিশাল) প্রতিনিধি-
দুই সহযোগীসহ বরিশালের গৌরনদী উপজেলার কমলাপুর গ্রামে একটি চোরাইকৃত ইজিবাইক বিক্রি করতে গিয়ে সোমবার রাতে গ্রামবাসীর হাতে আটক হয়েছে পলাশ হাওলাদার (৩২) নামের এক যুবক। গ্রামবাসী মিলে গণধোলাই দিয়েওই রাতেই তাকে থানা পুলিশের কাছে সোর্পদ করেছে।
প্রত্যক্ষদর্শী ও গ্রামবাসী জানায়, তাদের হাতে আটক হওয়া পলাশ হাওলাদার ও তার দুই সহযোগী মিলে সোমবার দিবাগত রাত সাড়ে ১০টার দিকে উপজেলার খাঞ্জাপুর ইউনিয়নের কমলাপুর গ্রামের জনৈক ব্যক্তির কাছে চোরাইকৃত একটি ইজিবাইক বিক্রি করতে যায়। তাদের গতিবিধি দেখে ওই ব্যক্তির সন্দেহ হয়। এ সময় সে পলাশের কাছে ইজিবাইকটি ক্রয়ের মেমোসহ কাগজপত্র দেখতে চায়। বিপদ আঁচ করতে পেরে পলাশ ও তার দুই সহযোগী তখন ইজিবাইকটি নিয়ে পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে। গ্রামবাসী মিলে তখন ধাওয়া করে ইজিবাইকসহ পলাশকে আটক করে। তবে তার দুই সহযোগী এ সময় দৌড়ে পালিয়ে যায়। গ্রামবাসীর হাতে আটক পলাশ হাওলাদার (৩২) উপজেলার খাঞ্জাপুর ইউনিয়নের মাগুরা গ্রামের আশরাফ হাওলাদারের ছেলে। পুলিশ সন্দেহ করছে সে ও আন্তঃজেলা ইজিবাইক ছিনতাইকারী চক্রের সাথে জড়িত। পুলিশী তদন্ত ও জিজ্ঞাসাবাদে তার ও সহযোগীদের অপকর্মের ভয়ঙ্কর কোন চিত্র বেড়িয়ে আসতে পারে বলে তাদের ধারনা।
এলাকাবাসী সূত্রে জানাগেছে, গত শনিবার শনিবার বিকেলে উপজেলার কমলাপুর গ্রামের নজরুল হাওলাদারের ছেলে ইজিবাইক চালক রাকিব হাওলাদার তার ইজিবাইকটিসহ ভুরঘাটা বাসষ্ট্যান্ড থেকে নিখোঁজ হয়। ওইদিন রাতে মারধরে অচেতন করে তার হাত-পা বেঁধে উপজেলার ইল্লা গ্রামের একটি নির্জন মাছের ঘেরের পাড়ে অচেতন অবস্থায় ফেলে রেখে ইজিবাইকটি নিয়ে পালিয়ে যায় একটি চক্র। পরদিন বিকেলে সেখান থেকে মুমুর্ষ অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে বরিশাল শের-ই বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। একই ভাবে গত বছরের আগষ্ট মাসে উপজেলার বাটাজোর বাসষ্ট্যান্ড থেকে ইজিবাইকসহ নিখোঁজ হয়েছিল পার্শ্ববর্তি উজিরপুর উপজেলার উত্তর মোড়াকাঠী গ্রামের আব্দুস ছালাম রাঢ়ীর ছেলে ইজিবাইক চালক মামুন রাঢ়ী। ঘটনার ২-৩দিন পর বরিশাল-ঢাকা মহাসড়কের বার্থী তাঁরা মাধ্যমিক বিদ্যালয় সংলগ্ন খাল থেকে পুলিশ মামুন রাঢ়ীর জবাই হওয়া অর্ধগলিত লাশ উদ্ধার করে। আজ পর্যন্ত পুলিশ ওই ঘটনার কোন কিনারা করতে পারেনি।
চোরাই ইজিবাইক বিক্রিকালে গ্রামবাসীর হাতে যুবক আটকের সত্যতা নিশ্চিত করে গৌরনদী মডেল থানার ওসি (তদন্ত) মোঃ তৌহিদুজ্জামান সোহাগ জানান, ঘটনাটি খতিয়ে দেখা হচ্ছে। এ ঘটনায় আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণের পাশাপাশি আসামীকে রিমান্ডে এনে জিজ্ঞাসাবাদের প্রস্তুতি চলছে। তার নামে থানায় ইজিবাইক চুরির আরো একটি মামলা রয়েছে।