চিকিৎসকের অবহেলায় নবজাতকের মৃত্যুর অভিযোগ

প্রকাশিত

রাজশাহী প্রতিবেদক: রাজশাহী নগরীর নওদাপাড়া এলাকায় ইসলামী ব্যাংক মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসকের অবহেলায় নবজাতকের মৃত্যুর অভিযোগ উঠেছে।

এই অভিযোগে সোমবার বেলা ১১টার দিকে হাসপাতালের পরিচালকের কক্ষ ঘেরাও করেন প্রসূতির স্বজনরা। এ সময় উত্তেজনা সৃষ্টি হলে পুলিশ গিয়ে তাদের বের করে দেয়। বের হওয়ার সময় তারা হাসপাতালে ভাঙচুর চালান।

ওই প্রসূতির নাম জুলিয়া বেগম। তিনি নগরীর আসাম কলোনি এলাকার নাজমুল হাসান টগরের স্ত্রী। জুলিয়া হাসপাতালের ৪০৬ নম্বর ওয়ার্ডের দুই নম্বর বেডে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। সন্তান প্রসবের জন্য শনিবার দিবাগত রাত ১টার দিকে তাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। রোববার বিকেলে সিজারিয়ান অস্ত্রোপচার করা হলে তিনি মৃত সন্তান প্রসব করেন।

জুলিয়ার স্বামী টগর জানান, হাসপাতালে ভর্তির পর চিকিৎসক আবেদা বেগম তার চিকিৎসা শুরু করেন। ওই রাতেই তিনি পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে জানান- মা ও সন্তান সুস্থ আছে। এরপর ভোর ৬টার দিকে তিনি অস্ত্রোপচারের সময় দেন। কিন্তু তিনি আর হাসপাতালে আসেননি। ৯ ঘণ্টা পর বিকেল ৩টার দিকে তার স্ত্রীর অস্ত্রোপচার করা হয়। সময় মতো সিজার না করায় গর্ভে তার সন্তানের মৃত্যু হয় বলে দাবি করেন তিনি।

এ ব্যাপারে মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করার চেষ্টা করে চিকিৎসক আবেদা বেগমকে পাওয়া যায়নি। তবে তার সহকারী সাবিনা ইয়াসমিন বলেন, শাশুড়ির মৃত্যুর খবর পেয়ে রোববার ভোরেই চিকিৎসক আবেদা বেগম কুষ্টিয়া চলে গেছেন। সকাল ৮টার দিকে ফোন করে তিনি বিষয়টি হাসপাতাল কর্তৃপক্ষকে জানিয়েছেন।

নগরীর শাহমখদুম থানার ওসি জিল্লুর রহমান বলেন, হাসপাতালে উত্তেজনা দেখা দিলে পুলিশ তা নিয়ন্ত্রণ করে। হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ ও রোগীর স্বজনরা নিজেদের মধ্যে মীমাংসা করে নিতে পারেন। এ নিয়ে কেউ থানায় অভিযোগ দিলেও তা গ্রহণ করা হবে।