চেয়ারম্যানের ওপর মেম্বারের হামলা! ছিনতাই ৫০ হাজার টাকা!

প্রকাশিত

নেত্রকোনা প্রতিনিধি: বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত কৃষকের মাঝে ভিজিএফের চাল বিতরনের সময় ইউপি চেয়ারম্যানের উপর হামলা চালিয়ে ওয়ার্ড মেম্বার রাসেল ৫০ হাজার টাকা চিন্তাই করে নিয়ে গেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। বৃহস্পতিবার দুপুরে উপজেলার ৭ নং নায়েকপুর ইউনিয়ন পরিষদ কার্যালয়ে ১নং ওয়ার্ডের ভিজিএফ কার্ডধারীদের মাঝে চাল ও নগদ টাকা বিতরেনর সময় এ ঘটনা ঘটে।

সংবাদ পেয়ে সরেজমিনে গেলে রাসেল মেম্বারের ওয়ার্ডে চাল ওজনে কম দিচ্ছিল বলে চেয়ারম্যানের সাথে মেম্বারের তর্কবির্তক ও হাতা হাতির ঘটনা ঘটে। কার্ডধারীদের নিকট টাকা চিনতাইয়ের বিষয়ে জানতে চাইলে তারা মুখ খোলতে রাজি না। এ সময় জামাল,ফয়সাল,বাবুল,উসমান,রুক্তন,আসাদুল,মেম্বার রাসেল মিয়াসহ কয়েকজন আহত হয়।

ইউপি চেয়ারম্যান আতিকুর রহমান রুমান জানান,১নং ওয়ার্ডের ইউপি মেম্বার রাসেল তার ওয়ার্ডের চাল ও নগদ টাকা বিতরণের সময় ইউপি কার্যালয়ে হামলা চালিয়ে ভারপ্রাপ্ত ট্যাগ অফিসারের নিকট থেকে আমার সামনে ভিজিএফ কার্ডধারীর ৫০ হাজার টাকার একটি বান্ডেল চিনতাই করে নিয়ে যায়। বিষয়টি তাৎক্ষণিক আমি উপজেলা নির্বাহী অফিসারকে অবগত করেছি। চাল বিতরণ শেষে এ ব্যাপারে লিখিত ভাবে ইউএনও বরাবর একটি অভিযোগ দায়ের করব।

ভারপ্রাপ্ত ট্যাক অফিসার ইউনিয়ন উপ-সহকারী ভূমি কর্মকর্তা কল্লোল কান্তি বিশ্বাস জানান,হামলাকারী ১নং ওয়ার্ড ইউপি সদস্য চাল বিতরণের সময় কক্ষে প্রবেশ করে চেয়ারম্যানের সাথে কথাকাটাকাটির এক পর্যায়ে আমার সামনে রাখা ৫০ হাজার টাকার একটি বান্ডেল চিন্তাই করে নিয়ে গেছে।

অভিযুক্ত ইউপি মেম্বার মোঃ রাসেল জানান, বন্যায় ক্ষতিগ্রস্থ কৃষকদের মাঝে চাল ও টাকা বিতরনের সময় চাল ওজনে কম দেওয়ায় এর প্রতিবাদ করায় চেয়ারম্যান তার লোকজন নিয়ে আমার ও আমার লোকজনের উপর হামলা চালায়। এতে আমারা ৯ জন আহত হই। এ ব্যাপারে ইউএনও সাহেব কে বিষয়টি অবগত করেছি।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ ওয়ালীউল হাসান জানান,চেয়ারম্যান এবং মেম্বারের পৃথক অভিযোগের প্রেক্ষিতে ঘটনা স্থলে গেলে চাল বিতরণের সময় জটলা বাধার বিষয়টি জানা যায়। চেয়ারম্যান টাকা ম্যানেজ করে টাকা ও চাল বিতরণ করছে। তবে টাকা চিনতাইয়ের বিষয়টি স্পষ্ট নয়, তদন্ত চলছে।