ছাত্রীকে উত্ত্যাক্তের প্রতিবাদ করায় শিক্ষকের বাড়িতে হামলা, আটক ৩!

প্রকাশিত

রাজশাহী প্রতিনিধি: রাজশাহীর বাগমারায় স্কুলছাত্রীকে উত্ত্যাক্তের প্রতিবাদ করায় শিক্ষকের বাড়িতে হামলা চালিয়ে বাড়ি ভাংচুর ও লুটপাট চালনোর ঘটনায় পুলিশ অভিযান চালিয়ে তিনজনকে আটক করেছে।

সোমবার দুপুরে উপজেলার তাহেরপুর পৌরসভার জামগ্রাম ও নুরপুর গ্রাম থেকে তাদেরকে আটক করা হয়।

আটকৃতরা হলেন, তাহেরপুর পৌরসভার নুরপুর গ্রামের আজাদ আলীর ছেলে নাজমুল হোসেন (২২) আফিজ উদ্দিনের ছেলে আফজাল আলী (৩০) এবং মৃত আরজ আলীর ছেলে আফিজ উদ্দিন (৫৫)।

পুলিশ ও এলাকাবাসি সুত্রে জানা যায়, উপজেলার তাহেরপুর পৌরসভার জামগ্রাম উচ্চ বিদ্যালয়ে ৯ম শ্রেণীর এক ছাত্রীকে ওই বিদ্যালয়ের সাবেক ছাত্র নুরপুর গ্রামের গোফ্ফার আলী ছেলে সবুজ (১৮) প্রেমের প্রস্তাব দেয়। বেশকিছু দিন থেকে সবুজ এবং তার বন্ধুরা মিলে ওই ছাত্রীকে স্কুলে যাওয়া আসার পথে নানা ভাবে উত্ত্যাক্ত করে আসছিল। শুধু রাস্তা ঘাটে নয় বিভিন্ন সময় বিদ্যালয়ে গিয়ে জোরপূর্বক প্রেমের প্রস্তাব দেয়। সেই সাথে ছাত্রীর ছবি মোবাইল ফোনে ধারণ করতো। ঔই ছাত্রী সবুজের সেই প্রস্তাবে রাজি না হয়ে বিদ্যালয়ে সহকারী প্রধান শিক্ষক গুলবার রহমানকে জানান। বিষয়টি আমলে নিয়ে সবুজসহ সহযোগিদের নিষেধ করেন শিক্ষক গুলবার রহমান। কিন্তু শিক্ষকের কথায় তারা কান না দিয়ে তাদের পিছনে থাকা অদৃশ্য শক্তির জোরে ওই শিক্ষককে নানা ভাবে ভয়ভীতি প্রদান করতে থাকে। এনিয়ে শিক্ষক গুলবার রহমানের সাথে তাদের মারপিটের ঘটনা ঘটে। এরই জের ধরে গত শুক্রবার রাতে সবুজ তার বাহিনী নিয়ে ওই শিক্ষককে হত্যার উদ্দেশ্যে তার বাড়ির দরজা ভেঙ্গে ভিতরে প্রবেশ করে স্বশস্ত্র হামলা চালায়। বিষয়টি টের পেয়ে শিক্ষক গুলবার রহমান খাটের নিয়ে লুকিয়ে থাকলে প্রাণে রক্ষা পায়। সে সময় তাকে না পেয়ে বাড়িতে থাকা তার ব্যবহৃত একটি মটর সাইকেলসহ ঘরের বিভিন্ন আসবাবপত্র ভাংচুর করে এবং ইচ্ছে মতো লুটপাট করে। সেই সাথে ওই শিক্ষকের স্ত্রী ও মেয়েকে শারীরিক ভাবে লাি ত করায় গত রোববার অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে পুলিশ ও র‌্যাব-৫ এর একটি দল ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। এদিকে শিক্ষক গুলবার রহমান নিরুপায় হয়ে জীবনের নিরাপত্তা চেয়ে প্রথমে বাগমারা থানায় লেখিত আভিযোগ দেয়। এবং পরে ১৯জনকে আসামী করে একটি মামলা দায়ের করেন। বাগমারা থানার মামলা নং-২। সে মামলায় পুলিশ গতকাল সোমবার দুপুরে অভিযান চালিয়ে তিনজনকে আটক করে থানারয় সোপর্দ করেছে। এ ব্যাপারে যোগাযোগ করা হলে তাহেরপুর পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ লুৎফর রহমান গ্রেফতারের সত্যতা শিকার করে জানান, শিক্ষককের বাড়িতে হামলা ও ভাংচুর করে লুটপাট চালনোর ঘটনায় পুলিশ অভিযান চালিয়ে তিনজনকে আটক করেছে। এবং বাকি আসামীদেরকে গ্রেফতারের জন্য পুলিশ ততপরতা চালাচ্ছে।