জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে ফরিদপুর পৌরসভায় আলোচনা ও দোয়া মাহফিল

প্রকাশিত

মাহবুব হোসেন পিয়াল, ফরিদপুর।
জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৩ তম শাহাদাত বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে ফরিদপুর পৌরসভার উদ্যেগে বৃহস্পতিবার (১৬ আগষ্ট) পৌর মিলনায়তনে দুপুর ২টায় আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে। আলোচনা ও দোয়া মাহফিলে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন পৌর মেয়র শেখ মাহতাব আলী মেথু। এ সময় পৌর সভার প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ শাজাহান মিয়া, পৌর প্যানেল মেয়র মির্জা মোঃ জাকির হোসেন, পৌর কাউন্সিলর আনিসুর রহমান চৌধুরী সাবুল, শামসুল আরেফিন সাগর, পৌরসভার নির্বাহী প্রকৌশলী মোঃ শামসুল আলম, পৌর সচিব তানজিলুর রহমান, সহকারি প্রকৌশলী মোল্লা মোঃ শফিকুল ইসলাম, উপ-সহকারি প্রকৌশলী আজিজুল ইসলাম বাদল, উপ-সহকারি প্রকৌশলী সৈয়দ মোঃ আশরাফ সহ পৌরসভার কর্মকর্তা কর্মচারিগণ উপস্থিত ছিলেন। আলোচনা সভাটি পরিচালনা করেন ফরিদপুর পৌরসভা কর্মর্কতা কর্মচারী এ্যাসোসিয়েশন এর সাধারণ সম্পাদক ফজলুল করিম আলাল। পরে দোয়া ও মোনাজাত পরিচালনা করেন ফরিদপুর পৌরসভা মজিদের ইমাম মাওলানা মোঃ রইচ উদ্দিন।

ভাজনডাঙ্গায় শোক দিবস উপলক্ষে মিলাদ, দোয়া ও কাঙ্গালী ভোজ

জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৩ তম শাহাদাত বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে ফরিদপুর শহরের ভাজনডাঙ্গা কালিবাড়ী মোড় এলাকায় বৃহস্পতিবার (১৬ আগষ্ট) বীর মুক্তিযোদ্ধা ও স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দদের উদ্যেগে পবিত্র কোরআন শরিফ খতম, মিলাদ, দোয়া ও কাঙ্গালী ভোজের আয়োজন করা হয়। বিকেলে বাদ আছর ভাজনডাঙ্গা জামে মসজিদে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আতœার মাগফিরাত কামনা করে মিলাদ ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। পরে ভাজনডাঙ্গা কালীবাড়ী মোড় এলাকায় কাঙ্গালী ভোজে দুঃস্থ্য ও দরিদ্রদের মাঝে খাবার বিতরন করা হয়। এসময় বীরমুক্তিযোদ্ধা আব্দুল করিম খান, বীরমুক্তিযোদ্ধা হারুন শেখ, বীরমুক্তিযোদ্ধা আনোয়ার বেপারী, আলীয়াবাদ ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান গোলাম ওমর ফারুক ডাবলু, আওয়ামীলীগ নেতা কালাম হাওলাদার, লিটন মোল্লা মধু, আব্দুর রাজ্জাক আরআই, আবুল সরদার, ফজলু মিয়া, সাবেক মেম্বার সেকেন্দার মিয়া, আব্দুল জব্বার মোল্লা, সালাউদ্দিন চোকদার সালি, আওলাদ বেপারী, রাজ্জাক শেখ, মজনু মিয়া উপস্থিত ছিলেন। মুক্তিযোদ্ধা আঃ করিম খান বলেন, যে নেতার জন্ম না হলে বাংলাদেশ নামক দেশের জন্ম হত না। সেই নেতার শাহাদাত বার্ষিকীতে তার আত্মার শান্তি কামনা করে আমরা নিজেদের উদ্যেগেই মিলাদ মাহফিল ও দোয়ার আয়োজন করেছি। বঙ্গবন্ধু আমাদের মুক্তিযোদ্ধাদের যে সুযোগ সুবিধা দিয়ে গেছেন আমরা তার কাছে সারা জীবন কৃতজ্ঞ।