জাবি ক্যাম্পাসে দুই শিক্ষিকা লাঞ্ছিত!

প্রকাশিত

জাবি সংবাদাদাতা: জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় (জাবি) ক্যাম্পাসে দুই শিক্ষিকা লাঞ্ছিত হয়েছেন বলে প্রক্টর অধ্যাপক তপন কুমার সাহার কাছে লিখিত অভিযোগ করেছেন। অভিযোগকারী শিক্ষিকারা হচ্ছেন- ভূগোল ও পরিবেশ বিভাগের সহকারী অধ্যাপক নাহরিন ইসলাম খান ও সহযোগী অধ্যাপক উম্মে সায়কা।

অপরদিকে শিক্ষার্থীদের সাথে অশোভন আচরণ ও শারীরিক লাঞ্ছনা উল্লেখ করে ওই দুই শিক্ষিকার বিরুদ্ধে প্রক্টর বরাবর পাল্টা অভিযোগ করেছেন অভিযুক্ত দুই শিক্ষার্থী।

রাস্তায় গাড়ি পার্কিংয়ের ঘটনাকে কেন্দ্র করে শুক্রবার দুপুরে বিশ্ববিদ্যালয়ের বটতলার রাস্তায় এ ঘটনা ঘটে বলে অভিযোগে উল্লেখ।

অভিযোগপত্রে শিক্ষকদ্বয় উল্লেখ করেন, ‘শুক্রবার দুপুরে বটতলায় খেতে গেলে ড্রাইভার রাস্তার পাশে গাড়ি রাখে। এতে ক্ষুব্ধ হয়ে আরমানুল ইসলাম খান  (আইন ও বিচার, ৪৩ ব্যাচ) তাদের সাথে বাজে আচরণ করে। পরবর্তীতে নুরউদ্দীন মো. সানাউল (অর্থনীতি, ৪০ ব্যাচ) এসে তুই তোকারি করে অপমান করে। এ ছাড়া সানাউল ও আরমান তাদের অকথ্য ভাষায় গালাগালি করেছে বলেও তারা অভিযোগপত্রে উল্লেখ করেন।

প্রক্টর বরাবর দেওয়া অভিযোগপত্রে আরমানুল ইসলাম খান উল্লেখ করেন, নাহরিন ইসলাম খান বটতলায় অবৈধভাবে গাড়ি রাখলে প্রথমে সেখানে নিয়োজিত গার্ড ও আনসাররা তাকে গাড়ি রাখতে নিষেধ করে। তখন তিনি গার্ডের কথা না শুনে জোর করে গাড়িটি সেখানে রাখলে আমিসহ কয়েকজন শিক্ষার্থী তাকে গাড়িটি সরিয়ে নিতে অনুরোধ করি। তিনি অনুরোধ না শুনে উল্টো আমাদের পরিচয় জানতে চান। আমরা পরিচয় দিয়ে তাকে আবার গাড়ি সরানোর অনুরোধ করলে তিনি ক্ষিপ্ত হয়ে ‘চড় দিয়ে দাঁত ফেলে’ দেবেন বলেন।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, বিশ্ববিদ্যালয়ের বটতলার রাস্তায় গাড়ি পার্কিং করেন ভূগোল ও পরিবেশ বিভাগের ওই দুই শিক্ষিকা। এ সময় শিক্ষার্থীরা রাস্তা থেকে গাড়িটি সরানোর জন্য ড্রাইভারকে বলেন। তখন নাহরিন ইসলাম খানের সাথে বিষয়টি নিয়ে শিক্ষার্থীরা বাকবিতন্ডায় জড়িয়ে পড়ে। তবে সহযোগী অধ্যাপক উম্মে সায়কার সাথে শিক্ষার্থীদের কথা কাটাকাটির কোন ঘটনা ঘটেনি। তিনি দূরে দাঁড়িয়ে ছিলেন।

সহকারী অধ্যাপক নাহরিন ইসলাম খান ও সহযোগী অধ্যাপক উম্মে সায়কা বলেন, ওই দুই শিক্ষার্থী যে আচরণ করেছে তা কোনভাবেই মেনে নেওয়া যায়না।

আরমান বলেন, নাহরিন ম্যাম রাস্তায় অবৈধভাবে গাড়ি পার্কিং করেছেন। আমরা তাকে গাড়ি সরানোর অনুরোধ করলে তিনি ক্ষমতার দাপট দেখিয়ে খারাপ আচরণ করেন।