জীবন্ত গাছে ১১ হাজার কেভি বিদ্যুতের লাইন

প্রকাশিত

মুন্সীগঞ্জ প্রতিনিধি-

মুন্সীগঞ্জের টঙ্গিবাড়ী উপজেলায় রাস্তার পাশের একটি জীবন্ত গাছকে ১১ হাজার কেভি (কিলোওয়াট ভোল্ট) বিদ্যুৎ সঞ্চালন লাইনের খুঁটি হিসাবে ব্যবহার করছে টঙ্গীবাড়ি পল্লী বিদ্যুৎ অফিস।

সরেজমিনে দেখা যায়, অনেকদিন যাবত জেলার টঙ্গীবাড়ি উপজেলার বালিগাঁও-কুণ্ডের বাজার সংযোগ সড়কের ওপর দিয়ে ১১ হাজার কেভি বিদ্যুৎ সঞ্চালন লাইনের একটি তার জীবন্ত গাছের ওপর ইনসুলেটরের মাধ্যমে স্থাপন করা হয়েছে। উপজেলার তস্তিপুর গ্রামের ইউনুস স্পেশিয়াল কোল্ড স্টোরের সামনে রাস্তার পূর্ব পাশের একটি গাছের ওপর দিয়ে এ বিদ্যুৎ লাইনটি স্থাপন করেছে বিদ্যুৎ অফিস।

এদিকে, এই রাস্তাটি দিয়ে প্রতিদিন শত শত যানবাহনসহ স্কুল-কলেজে পড়ুয়া শিক্ষার্থীরা ঝুঁকি নিয়ে যাতায়াত করছে। তাছাড়া ওই রাস্তাটির পাশেই বালিগাওঁ বাজার সংলগ্ন বালিগাঁও উচ্চ বিদ্যালয় রয়েছে। সেখানকার ছাত্র ছাত্রীসহ এ অঞ্চলের লোকজন এই রাস্তার ওই গাছটির নিচ দিয়ে পায়ে হেঁটে যাতায়াত করে। যে কোন মুহূর্তে দুর্ঘটনা ঘটতে পারে এমন আশংকায় আশেপাশের কয়েকটি গ্রামের লোকজনের মধ্যে আতঙ্ক বিরাজ করছে।

ওই এলাকার আমির হোসেন জানান, অনেকদিন যাবত এই সংযোগ সড়কে ১১ হাজার কেভি বিদ্যুৎ সঞ্চালন লাইনের তার জীবন্ত গাছের ওপর স্থাপন করা হয়েছে। এতে বড় ধরনের ঝুঁকিতে রয়েছে ওই সড়ক দিয়ে চলাচল করা শত শত শিশু-কিশোরসহ সাধারণ মানুষ।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক স্থানীয় এক শিক্ষক জানান, ওই রাস্তাটির পাশেই বালিগাওঁ বাজার সংলগ্ন বালিগাঁও উচ্চ বিদ্যালয় রয়েছে। সেখানকার ছাত্র-ছাত্রীসহ এ অঞ্চলের লোকজন এই রাস্তার ওই গাছটির নিচ দিয়ে পায়ে হেঁটে যাতায়াত করে। এছাড়াও এ রাস্তাটি দিয়ে প্রতিদিন শত শত যানবাহনসহ আরও অনেক স্কুল-কলেজে পড়ুয়া শিক্ষার্থীরা ঝুঁকি নিয়ে যাতায়াত করছেন। বিদ‌্যুতের এই সংযোগ দ্রুত অপসারন না করা হলে যে কোনো সময় কোনো দুর্ঘটনা ঘটতে পারে।

ওই এলাকান নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক আরও এক ব‌্যবসায়ী জানান, ব্যস্ততম এ রাস্তার পাশে গাছের মধ্যে বিদ্যুতের ওই তার স্থাপনের ফলে যে কোন মুহূর্তে তার ছিড়ে ঘটতে পারে কোনো বড় দুর্ঘটনা। এই আশঙ্কায় আশেপাশের কয়েকটি গ্রামের লোকজনের মধ্যে আতঙ্ক বিরাজ করছে। দীর্ঘদিন যাবত গাছের মধ্যে তারটি স্থাপন করা হলেও তা অপসারণ করা হচ্ছে না বলে টঙ্গীবাড়ি পল্লী বিদ্যুৎ বিরুদ্ধে এলাকাবাসীরা অভিযোগ করছে। কিন্তু কর্তৃপক্ষ এ বিষয়ে কোনো পদক্ষেপ নিচ্ছে না। তাদের মধ‌্যে যথেষ্ট গাফলতি লক্ষ‌্য করা যাচ্ছে।

এ প্রসঙ্গে জেলার টঙ্গিবাড়ি পল্লী বিদ্যুৎ জোনাল অফিসের ডিজিএম মাধব নাগ বলেন, ‘আমি এ ব্যাপারে কিছুই জানতাম না। মঙ্গলবার রাতে গণমাধ্যমকর্মীর ফোনে জানতে পারি যে, টঙ্গীবাড়ি উপজেলার বালিগাঁও-কুন্ডের বাজার সংযোগ সড়কের ওপর দিয়ে ১১ হাজার কেভি বোল্ডের বিদ্যুৎ সঞ্চালন লাইনের তার একটি গাছকে খুঁটি বানিয়ে তার ওপর দিয়ে বিদ্যুতের লাইন নেওয়া হয়েছে। পরে বুধবার বিদ্যুৎ অফিসের লাইনম্যানসহ সরেজমিনে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করা হয়েছে।

পরিদর্শন শেষে তারা জানিয়েছে, গাছের সঙ্গে বিদ্যুতের তারের লাইন সংযোগ থাকায় কোনো সমস্যাই হবে না। তবে বন বিভাগকে চিঠি পাঠানোর ব্যবস্থা করা হচ্ছে ওই গাছটি কাটার জন্য। গাছ কাটার পরে বিদ্যুতের ওই লাইনের বিকল্প ব্যবস্থা করা হবে।

Be the first to write a comment.

Leave a Reply