টঙ্গীতে বুদ্ধি বিকাশ প্রতিবন্ধী স্কুল জোরপূর্বক উচ্ছেদ, ৫ লক্ষ টাকার মালামাল ক্ষতি

প্রকাশিত

মৃণাল চৌধুরী সৈকত :
টঙ্গীর বনমালার আলাউদ্দিন রোড এলাকায় বুদ্ধি বিকাশ প্রতিবন্ধী স্কুল উচ্ছেদ, আসবাবপত্র ভাংচুর ও লুটপাটের ঘটনা ঘটেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।
অভিযোগে জানা যায়, স্থানীয় বনমালা এলাকায় বিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা করার লক্ষ্যে বিদ্যালয়ের পরিচালক আফরোজা আক্তার বেবী ২ বছরের জন্য একটি টিনসেড বাড়ী ভাড়া নিয়ে বুদ্ধি বিকাশ প্রতিবন্ধী স্কুল প্রতিষ্ঠা করে দীর্ঘদিন যাবত সুনামের সহিত প্রতিবন্ধী, অসহায় ও এতিম ছেলে মেয়েদের লেখা চালিয়ে যাচ্ছে। এমতাবস্থায় বিদ্যালয়টি উচ্ছেদের জন্য একশ্রেণীর অসাধু ব্যক্তিরা দীর্ঘদিন যাবত পায়তারা চালিয়ে আসছে। এরই পরিপ্রেক্ষিতে গতকাল মঙ্গলবার স্থানীয় হারুন মিয়ার নেতৃত্বে ফরিদা চৌধুরী, নোমান, মাসুদসহ ৭/৮জনের একটি দল আকস্মিক ভাবে বুদ্ধি বিকাশ প্রতিবন্ধী স্কুলে অনধিকার ভাবে প্রবেশ করে বিদ্যালয়ের প্রয়োজনীয় কাগজপত্র, আসবাবপত্রসহ বিভিন্ন মালামাল ভাংচুর ও লুটপাট করেছে।

এতে বিদ্যালয়ের প্রায় ৫ লক্ষ টাকার ক্ষতিসাধন হয়েছে বলে জানিয়েছেন আফরোজা আক্তার বেবী। এতে বাধা দিলে বিদ্যালয়ের পরিচালক আফরোজা আক্তার বেবীকে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করে এবং স্কুল থেকে বের করে দেয়ার হুমকি দেয়।
এব্যাপারে হারুন মিয়ার সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, দীর্ঘদিন ধরে ঘর ভাড়া নিয়ে স্কুল পরিচালনা না করে এবং নিয়মিত ঘর ভাড়া না দিয়ে জোরপূর্বক বাড়িটি দখল করে রাখেন বেবী নামের ওই মহিলা। আমাদের বাড়টি প্রয়োজন হয়ে পড়ায় আমরা বার বার তাগিদ দিলেও তিনি কর্ণপাত না করে উল্টো আমাদের নামে থানায় মিথ্যা অভিযোগ করে। এনিয়ে কয়েকবার বৈঠক হয়, ভাড়া পরিশোধ করে তাকে ঘর ছেড়ে দিতেও বলা হয়। ততাপি বাড়িটি না ছাড়ায় আমরা তাকে বের করে দিই। লুটপাট বা ভঅংচুরের মতো কোন ঘটনা ঘটেনি বলেও তিনি দাবী করেন।
ভাংচুর ও লুটপাটের ঘটনায় বিদ্যালয়ের পরিচালক আফরোজা আক্তার বেবী টঙ্গী থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন।
##