ট্রাম্পের নির্বাচন নিয়ে সালমান রুশদির নতুন দাবি

প্রকাশিত

আন্তর্জাতিক ডেস্ক :ডোনাল্ড ট্রাম্প যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হওয়ার এক বছরের বেশি সময় পর ভারতীয় বংশোদ্ভূত বিতর্কিত ব্রিটিশ লেখক সালমান রুশদি দাবি করলেন, তার দি ‘গোল্ডেন হাউস’ উপন্যাসে তিনি ট্রাম্পের নির্বাচনে দাঁড়ানোর ভবিষ্যদ্বাণী করেছিলেন।

তবে তিনি এ-ও স্বীকার করেছেন, নির্বাচনে ট্রাম্প নন, হিলারিই বিজয়ী হবেন বলে তিনি নিশ্চিত ছিলেন। কিন্তু শেষ পর্যন্ত ট্রাম্পই জয়ী হন।

২০১৩ সালে হ্যান্স ক্রিস্টিয়ান অ্যান্ডারসন পুরস্কার বিজয়ী রুশদি শনিবার কলোম্বিয়ার কার্টাগেনায় হে ফেস্টিভ্যালের নমব পর্বে কলোম্বিয়ান লেখক হুয়ান গ্যাব্রিয়েল ভাসকুয়েজের সঙ্গে এক যৌথ আলোচনায় এ দাবি করেন।

৭০ বছর আগে ভারতের মুম্বাইয়ে জন্মগ্রহণকারী রুশদি দাবি করেন, তার বইটি জানত কী ঘটতে যাচ্ছে। তবে তা তার নিজের বেলায় নয়। কারণ উপন্যাসের নিজস্ব প্রজ্ঞা বলে সেই ভবিষ্যদ্বাণী তৈরি হয়েছে। এ সম্পর্কে তিনি বলেন, তার বইটি দেখিয়েছে কীভাবে এক খণ্ড শিল্পকর্ম শিল্পীর চেয়েও বেশি জানে।

রুশদি পরিষ্কার করে বলেছেন, ট্রাম্প তার উপন্যাসের কেন্দ্র নন, আমেরিকান সমাজের মেরুকরণই উপজীব্য। এ ছাড়া এই বইয়ের লেখনিকে তিনি ষাঁড়ের লড়াইয়ের সঙ্গে তুলনা করেছেন, যেখানে পশুর গুঁতা খাওয়া ও আহত হয়ে রক্তাক্ত হওয়ার ঝুঁকি রয়েছে। রুশদি বলেছেন, একটি বই লেখা ষাঁড়ের খুব কাছ থেকে বেঁচে যাওয়ার মতো উত্তেজনাপূর্ণ। এতে যদি কেউ খারাপ করে, তাহলে বইটি গতকালের পত্রিকার মতো অপ্রাসঙ্গিক হয়ে যায়। তবে যদি কেউ সৌভাগ্যবান হন, তাহলে বইটি ওই মুহূর্তগুলো ইতিহাসে ধারণ করে রাখে।

তার লেখা বহুল আলোচিত-সমালোচিত ‘দি স্যাটানিক ভার্সেস’ নিয়ে ধর্ম অবমাননার অভিযোগে ইরানের সর্বোচ্চ ধর্মীয় নেতা আয়াতুল্লাহ আলী খামেনির ফতোয়া জারির কথা স্মরণ করে রুশদি সমালোচনা করেছেন।

নোবেলজয়ী কলোম্বিয়ান লেখক গ্যাব্রিয়েল গার্সিয়ার ‘হান্ড্রেড ইয়ার্স অব সলিটিউড’ বইয়ে যে বর্ণনা দেওয়া হয়েছে, তা তার মাতৃভূমি ভারতীয় সমাজের খুব কাছাকাছি বলে দাবি করেছেন তিনি। ভারতীয় ও কলোম্বিয়ান সমাজের মধ্যে সাদৃশ্য দেখাতে গিয়ে তিনি বলেছেন, দুই দেশেই ধনী ও গরিরের মধ্যে ব্যাপক ব্যবধান, ধর্মীয় ও অতীত ঔপনিবেশিক শক্তির মারাত্মক প্রভাব রয়েছে।

তথ্যসূত্র : এনডিটিভি অনলাইন