ঢাবিতে ‘ঘ’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষার প্রশ্নপত্র ফাঁসের অভিযোগ

প্রকাশিত
ঢাবি প্রতিনিধি: ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদভুক্ত ‘ঘ’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষার প্রশ্নপত্র ফাঁসের অভিযোগ উঠেছে। প্রশ্নপত্র ফাঁসের বিষয়টি অস্বীকার করেছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের কর্তৃপক্ষ । তবে অভিযোগটি খতিয়ে দেখার কথা জানিয়েছেন তাঁরা।
শুক্রবার সকাল ১০টায় বিশ্ববিদ্যালয় ও বিশ্ববিদ্যালয়ের বাইরে ৮১টি কেন্দ্রে ঘ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা শুরু হয়। পরীক্ষা চলাকালীন সাড়ে ১০টার দিকে উত্তরসহ হাতে লেখা  প্রশ্নত্রের একটি কপি  সাংবাদিকদের হাতে আসে। সেটি বিশ্ববিদ্যালয়ের সাংবাদিকরা সহকারী প্রক্টর সোহেল রানাকে দেখান। পরীক্ষা শেষে হাতে লিখিত প্রশ্নপত্রের সঙ্গে অনুষ্ঠিত পরীক্ষার  প্রশ্নপত্রের মিল পাওয়া যায়।
১০০টি প্রশ্নের মধ্যে ৭২টি প্রশ্নের হুবহু মিল পাওয়া যায়। এর মধ্যে  বাংলা ১৯টি, ইংরেজি ১৭টি, সাধারণ জ্ঞানের ৩৬টি প্রশ্ন মিল পাওয়া যায়। বাংলাদেশ বিষয়াবলীর ১৬টি ও আন্তর্জাতিক বিষয়াবলীর ২০টি প্রশ্নের মিল রয়েছে।
এদিকে ওইদিন বেলা সাড়ে ১১টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর একেএম গোলাম রব্বানী তাঁর কার্যালয়ে আসেন। তখন সাংবাদিকরা তাকে প্রশ্নপত্র ফাঁসের বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমরা এখন পযর্ন্ত কোনও নির্ভরশীল সোর্স থেকে প্রশ্নফাঁস হয়েছে এটা নিশ্চিত হতে পারিনি। যে অভিযোগ উঠেছে তা  প্রশ্নপত্র ফাঁসের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট নয়, ভর্তি পরীক্ষা জালিয়াতির সঙ্গে সংশ্লিষ্ট হতে পারে। বিষয়টি তদন্ত করে দেখে পরবর্তীতে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।
তদন্তে প্রশ্নফাঁসের বিষয়টি   প্রমাণিত হলে পুনরায় পরীক্ষা নেওয়া হবে কিনা সাংবাদিকদের এমন  প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের নিয়মনীতি অনুসারে এ বিষষে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে। কয়েকজন সাংবাদিক আমাদের একটি হাতে লেখা প্রশ্ন এনে দেখিয়েছেন। বিষয়টি তদন্ত করে দেখবেন বলে জানান তিনি।
এদিকে সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদের ডিন ও ‘ঘ’ ইউনিট পরীক্ষার সমন্বয়ক অধ্যাপক সাদেকা হালিম বলেন, এ ব্যাপারে তিনি কিছুই জানেন না। বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর তাকে কিছুই জানাননি। অভিভাবকদের মধ্যেও  এ বিষয়ে  কেউ কোন  অভিযোগ করেনি বলে জানান তিনি।