তুরাগে দৈনিক নাগরিক ভাবনার ১ম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালন

প্রকাশিত

তুরাগ (ঢাকা) প্রতিনিধিঃ সময়ের প্রায় সব চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা করে দৈনিক নাগরিক ভাবনা পাঠক নন্দিত হয়েছে । এভাবেই এগিয়ে যাওয়া অব্যাহত থাকুক । দেশের মতো সারা বিশ্বে ছড়িয়ে থাকা বাংলাদেশিদের গর্বের প্রতিষ্ঠান হয়ে উঠুক দৈনিক নাগরিক ভাবনা । পত্রিকাটির অগ্রযাত্রায় দেশবাসী সঙ্গে আছেন । সঙ্গে থাকবেন । আস্থা আর ভালোবাসার এমন উচ্চারণে শুভেচ্ছা ভালোবাসায় দৈনিক নাগরিক ভাবনার ১ম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালন করেছেন রাজধানীর তুরাগে বসবাসরত পত্রিকাটির পাঠক ও শুভানুধ্যায়ীরা । বুধবার (২৪ শে ফেব্রয়ারি ) রাত ৮টার দিকে রাজধানীর তুরাগে বসবাসরত দৈনিক নাগরিক ভাবনা পত্রিকার নিয়মিত কলাম লেখক মোল্লা তানিয়া ইসলাম তমার বাসায় পত্রিকাটির পাঠক ও শুভানুধ্যায়ীদের উপস্থিতে, কেক কাটার মাধ্যমে উক্ত বর্ষপূর্তি অনুষ্ঠানের সূচনা করা হয় । এরপর একে একে শুভেচ্ছা বক্তব্য দেন অতিথিরা । এসময় বক্তারা তাদের বক্তব্যে বলেন, অতীতের প্রায় সব চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা করে দৈনিক নাগরিক ভাবনা আজ বাংলা ভাষাভাষীর হৃদয়ে জায়গা করে নিয়েছে । বস্তুনিষ্ঠতার কারণে পত্রিকাটি যেমন জনপ্রিয়, তেমনি দেশবাসীর আস্থার দৈনিকে পরিণত হয়েছে । দৈনিক নাগরিক ভাবনা অতীতের মতো সঠিক তথ্য সাহসিকতার সাথে তুলে ধরবে এবং দেশবাসীর সঙ্গেই থাকবে । পত্রিকাটি মাত্র ১বছর পার করেছে । একটি পত্রিকা পাঠকপ্রিয় না হলে এত অল্প সময়ে এতদূর আসা সম্ভব হতো না । চ্যালেঞ্জ মোকাবিলার বাংলা দৈনিকের নাম বলতে গেলে এখন দৈনিক নাগরিক ভাবনা পত্রিকাটির নামও চলে আসে । আস্থার দৈনিকের নাম হলেও দৈনিক নাগরিক ভাবনার নামটি চলে আসে । তাই এটা সংবাদমাধ্যমের জন্য একটি মাইলফলক । পত্রিকাটির কলাম লেখক মোল্লা তানিয়া ইসলাম তমা তার বক্তব্যে বলেন, দৈনিক নাগরিক ভাবনা সাংবাদিকতার নতুনত্বে তরুণেরা আকৃষ্ট হয়, প্রজন্ম শক্তিশালী হয় । ঢাকা থেকে বিগত ২০২০ইং সনের ২৩ ফেব্রুয়ারি বিশিষ্ট সাংবাদিক ও কলামিস্ট শেখ রিফান আহম্মেদের প্রকাশনায় এবং আফরোজা সিদ্দিকার সম্পাদনায় পত্রিকাটির প্রকাশনার সূচনা হয় । তারপর নানা প্রতিকূলতা অতিক্রম করে নিয়মিত প্রকাশিত হয়ে আসছে দৈনিক নাগরিক ভাবনা । তিনি আরও বলেন, দৈনিক নাগরিক ভাবনার প্রকাশক শেখ রিফান আহম্মেদ পত্রিকাটির ১ম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে সৃষ্টিশীলতার যে কথা বলেছেন, সেই বক্তব্যকে ধারণ করে আমরা এগিয়ে যাব । সময়ের সব প্রতিকূলতাকে মোকাবিলা করে আমরা এগিয়ে যাব । আস্থা আর ভালোবাসার জায়গায় আমরা কখনো আপস করব না।’ আলোচনা সভা শেষে রাত ১০টার দিকে এক প্রীতিভোজের মাধ্যমে এই বর্ষপূর্তি অনুষ্ঠানের সমাপ্তি ঘটে ।