দেশে ৫ জানুয়ারির মতো নির্বাচন হতে দেয়া হবে না : ফখরুল

প্রকাশিত

একাদশ নির্বাচন সুষ্ঠু করতে বিএনপি ‘যথা সময়েই’ নির্বাচনকালীন সরকারের রূপরেখা ঘোষণা করবে বলে জানিয়েছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। তিনি বলেন, ২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারির মত ঘটনা দেশে আর ঘটতে দেয়া হবে না। যেকোনো মূল্যে গায়ের জোরে ক্ষমতায় টিকে থাকার নির্বাচন প্রতিহত করা হবে। মিথ্যা মামলায় বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াকে সরকার আদালতের মাধ্যমে হেনস্থা করছে। জনগণ এর জবাব ব্যালটের মাধ্যমে দিতে প্রস্তুত রয়েছে। : গতকাল শনিবার দুপুরে নয়া পল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের ৮২তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে দলের চিকিৎসক সংগঠন ‘ডক্টরস অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ-ড্যাব’-এর উদ্যোগে দিনব্যাপী ফ্রি মেডিকেল ক্যাম্পের উদ্বোধনের এই অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন। আগামী নির্বাচন নিয়ে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের বক্তব্যের জবাবে বিএনপি মহাসচিব বলেন, বিএনপির নির্বাচনের যে অবস্থান সেটা অত্যন্ত স্পষ্ট। আমরা বলেছি যে, আমরা একটা সমান্তরাল ক্ষেত্র চাই, নিরপেক্ষ সরকার চাই। যেখানে আমরা অংশ নিতে একটা উপযুক্ত পরিবেশ পাই। আমরা বলেছি, নির্বাচনকালীন সময়ে একটা নিরপেক্ষ সরকার না হলে নির্বাচন সুষ্ঠু হবে না। সে কথা তারা (সরকার) শুনছেও না, সে কথায় তারা যেতেও চান না। তারা জানেন যে, নির্বাচন যদি নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে হয়, সুষ্ঠু অবাধ হয়, সব মানুষ যদি ভোট দিতে পারে তাহলে তাদের ভরাডুবি হবে। তারা কখনোই ক্ষমতায় আসতে পারবে না। আর এটা জেনেই আওয়ামী লীগ গায়ের জোরে ক্ষমতায় থাকতে চাইছে। : মির্জা ফখরুল বলেন, আমরা নির্বাচনকালীন সরকারের রূপরেখা দেবো। আমরা মনে করি যে, প্রত্যেকটি বিষয়েরই একটি সময় আছে। সেই সঠিক সময়ে অর্থাৎ যথা সময়ে অবশ্যই নির্বাচনকালীন সহায়ক সরকারের রূপরেখা জাতির কাছে আমরা তুলে ধরব। কেন নির্বাচনকালীন সরকার বিএনপি চায় তা ব্যাখ্যা করে মির্জা ফখরুল বলেন, প্রতিদিন নতুন নতুন মামলা দেয়া হচ্ছে, দেশের সবচেয়ে প্রিয় নেত্রীকে মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানি করা হচ্ছে। আর তারা (সরকার) নির্বাচনের কথা বলছে। এভাবে পরিবেশ থাকলে সেখানে কীভাবে সুষ্ঠু নির্বাচন হবে? আমরা বার বার বলেছি, নির্বাচনকালীন সময়ে আমরা একটা নিরপেক্ষ সরকার চাই। আমরা আওয়ামী লীগের সরকার চাই না, শেখ হাসিনার সরকার চাই না এজন্যে যে, আমাদের দীর্ঘপথের এই অভিজ্ঞতা তাদের অধীনে কোনো দিন নির্বাচন সুষ্ঠু হতে পারে না। কারণ সব কিছুই গায়ের জোরে নিয়ে যেতে চান। এই গায়ের জোরে নেয়া প্রতিহত করতে হবে বলে মন্তব্য করেন তিনি। : এ সময় মির্জা ফখরুল জানান, আওয়ামী লীগ ক্ষমতাসীন হওয়ার পর থেকে সারাদেশে ৭ লাখ ৩৮ হাজার নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে ৭২ হাজার মামলা দেয়া হয়েছে। এসব মিথ্যা ও উদ্দেশ্যমূলক মামলায় গ্রেফতার করে হয়রানি করা হচ্ছে, যার সর্বশেষ শিকার বিএনপির সহযোগী সংগঠন স্বেচ্ছাসেবক দলের সাংগঠনিক সম্পাদক ইয়াছিন আলী। সারাদেশে প্রতিদিনই গ্রেফতার চলছে। প্রসঙ্গত, শুক্রবার জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে জিয়াউর রহমানের মাজারে শ্রদ্ধা নিবেদনে আসার সময় ইয়াছিন আলীকে গ্রেফতার করে পল্লবী থানার পুলিশ। : অনুষ্ঠানে ড্যাবের মহাসচিব অধ্যাপক এজেডএম জাহিদ হোসেন, বিএনপি  চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা কাউন্সিলের সদস্য অধ্যাপক সিরাজউদ্দিন আহমেদ, আতাউর রহমান ঢালীসহ ড্যাব নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।