ধানের শীষের প্রচারণায় বিএনপির ৫৭ কেন্দ্রীয় টীম গাজীপুরে

প্রকাশিত

প্রধান সম্পাদক : গাজীপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচনে ধানের শীষ প্রতীকে ২০ দলীয় জোট মনোনীত মেয়র পদপ্রার্থী মুক্তিযোদ্ধা হাসান উদ্দিন সরকারের পক্ষে নগরির ৫৭টি ওয়ার্ডে বিএনপির কেন্দ্রীয় ৫৭টি টীম প্রচারণায় নেমেছে। ইতিমধ্যে এসব টীম তাদের নির্ধারিত ওয়ার্ডে প্রচারণা শুরু করেছে। এছাড়া জামায়াতে ইসলামী, ইসলামী ঐক্যজোট, জাতীয় পার্টি (কাজী জাফর), লেবার পার্টি, জাগপাসহ ২০ দলীয় জোটভুক্ত অন্যান্য দলের আলাদা টীম নির্বাচনী প্রচারণায় নেমেছে। এমনকি জাতীয় পার্টি (এরশাদ) অধিকাংশ নেতাকর্মী কেউ প্রকাশ্যে আবার কেউ গোপনে হাসান উদ্দিন সরকারের পক্ষে কাজ করছেন। হেফাজতে ইসলামের জেলা নেতারা প্রকাশ্যেই হাসান উদ্দিন সরকারের নির্বাচনী পথসভায় বক্তব্য দিচ্ছেন। হাসান উদ্দিন সরকার গভীরভাবে জাতীয়তাবাদ ও ইসলামী মতাদর্শে বিশ্বাসী। এলাকার আলেম ওলামাদের সাথে রয়েছে তার গভীর সম্পর্ক। তিনি নিজেও একটি মাদরাসা পরিচালনা করেন। এসব কারণে তার প্রতি আলেমদের রয়েছে ব্যাপক সমর্থন। তিনি মিথ্যা ও প্রতিহিংসার রাজনীতিতে বিশ্বাস না করায় দল মত নির্বিশেষে তার প্রতি সব মহলের রয়েছে সমর্থন। বিশেষ করে তার গণসংযোগ ও পথ সভাগুলোতে এলাকার প্রবীণ মানুষের বেশি উপস্থিতি লক্ষ্য করা যাচ্ছে। হাসান সরকারের পক্ষে সব মহলের প্রচারণায় নির্বাচনী মাঠ জমে উঠেছে।
বিএনপির কেন্দ্রীয় ৫৭টি প্রচার টীমের তৎপরতা : নগরির কাশিমপুর অঞ্চলে ১ নম্বর ওয়ার্ডে গণসংযোগ করছেন, গৌতম চক্রবর্তী, প্রফেসর এ.বি.এম ওবায়দুল ইসলাম, গোলাম মর্তুজা চৌধুরী তোহা, মোরতাজুল করিম বাদরু, ২ নম্বর ওয়ার্ডে আবুল কালাম আজাদ সিদ্দিকী, ডা. রফিকুল কবির লাবু, নুরুল ইসলাম নয়ন, ৩ নম্বর ওয়ার্ডে রুহুল কুদ্দুস তালুকদার দুলু, ইঞ্জিনিয়ার মোস্তফা, বাবুল আহমেদ, রফিকুল আলম মজনু, ৪ নম্বর ওয়ার্ডে হাবিবুর রহমান হাবীব, শেখ ফরিদ আহমেদ মানিক, মামুন হাসান, সাইফুল ইসলাম, ৫ নম্বর ওয়ার্ডে ফরহাদ হালিম ডোনার, আমিরুল ইসলাম খান আলীম, রওশন আরা ফরিদ, এম জাহাঙ্গীর হোসেন, ৬ নম্বর ওয়ার্ডে কৃষিবিদ সামসুল আলম তোফা, রোজিনা ইসলাম, ফরহাদ ইকবাল, মো. জব্বার খান প্রমুখ বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতারা। তাদের সাথে ছিলেন ধানের শীষ প্রতীকের প্রচারণায় কাশিমপুর অঞ্চলের দায়িত্বপ্রাপ্ত বিএনপির কেন্দ্রীয় সহ-শ্রম বিষয়ক সম্পাদক হুমায়ুন কবির খান। কোনাবাড়ি অঞ্চলের ৭ নম্বর ওয়ার্ডে শামসুজ্জামান দুদু, কলিম উদ্দিন মিলন, ইঞ্জিনিয়ার আশরাফ উদ্দিন বকুল, তকদীর হোসেন জসীম, শফিকুল ইসলাম মিল্টন, ৮ নম্বর ওয়ার্ডে অ্যাডভোকেট আহমেদ আজম খান, আসাদুর করীম শাহীন, ইঞ্জিনিয়ার আফজাল হোসেন সবুজ, গোলাম মাওলা শাহীন, ৯ নম্বর ওয়ার্ডে মীর শরাফত আলী সপু, রাজিয়া আলীম, শরীফ হোসেন, আওলাদ হোসেন উজ্জল, ১০ নম্বর ওয়ার্ডে আসাদুল হাবীব দুলু, আলহাজ তমিজ উদ্দীন, মোস্তফা কামাল রিয়াদ, রাশেদুল ইসলাম রাশেদ, ১১ নম্বর ওয়ার্ডে মনিরুল হক চৌধুরী, আব্দুল আউয়াল খান, মোস্তফা খান সফরী, সাঈদ হাসান মিন্টু, ১২ নম্বর ওয়ার্ডে ডা. দেওয়ান সালাউদ্দিন, খন্দকার আবু আশফাক, রেজাউল কবির পল ও শরিফ উদ্দিন জুয়েল। তাদের সাথে ছিলেন ধানের শীষ প্রতীকের প্রচারণায় কোনাবাড়ি অঞ্চলের দায়িত্বপ্রাপ্ত গাজীপুর জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক ও কোনবাড়ি সাংগঠনিক থানা বিএনপির সভাপতি মো. ইদ্রিস আলী।
বাসন অঞ্চলে ১৩ নম্বর ওয়ার্ডে সৈয়দ এমরান সালেহ প্রিন্স, দীপেন দেওয়ান, শামসুজ্জামান জামান, আর.টি মামুন, ইফতেখার সেলিম অগ্নি, ১৪ নম্বর ওয়ার্ডে শওকত মাহমুদ, আমিনুর রশীদ ইয়াসীন, বজলুল করীম চৌধুরী আবেদ, রিজিয়া পারভীন, মোস্তাফিজুর রহমান বাচ্চু, ১৫ নম্বর ওয়ার্ডে সালাউদ্দিন আহমেদ (ডেমরা), ফুটবলার আমিনুল হক, ড. খন্দকার মারুফ হোসেন, মোস্তফা কামাল পাপেল, মন্জুর মোর্শেদ পলাশ, ১৬ নম্বর ওয়ার্ডে শরিফুল আলম, শামীমুর রহমান শামীম, সাবিরা নাজমুল মুন্নি, ফজলুর রহমান, সাঈদুর রহমান মামুন, ১৭ নম্বর ওয়ার্ডে হেলালুজ্জামান তালুকদার দুলু, এম.এ মালেক, বাবু রমেশ চন্দ্র, আবু সাঈদ, ফারুক হোসেন, নুরুজ্জামান সরদার, ১৮ নম্বর ওয়ার্ডে মাহবুবুর রহমাম শামীম, ভিপি হারুন, মশিউর রহমান বিপ্লব, শাহানা আক্তার শানু, আব্দুল খালেক হাওলাদার ও ওয়াহিদ বিন ইমতিয়াজ বকুল। তাদের সাথে ছিলেন ধানের শীষ প্রতীকের প্রচারণায় বাসন অঞ্চলের দায়িত্বপ্রাপ্ত গাজীপুর জেলা বিএনপির সিনিয়র যুগ্ন সম্পাদক সোহরাব হোসেন ও সদর থানা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক সুরুজ্জামান।
কাউলতিয়া অঞ্চলে ১৯ নম্বর ওয়ার্ডে গণসংযোগ করেন আফজাল এইচ খান, আমিরুজ্জামান খান শিমুল, অধ্যাপক আমিনুল ইসলাম, জাকারিয়া মনজু, মাজহারুল হক সোহাগ, ২০ নম্বর ওয়ার্ডে গোলাম আকবর খন্দকার, শাহীন শওকত, শাম্মী আক্তার, আরিফা জেসমিন নাহিন, ইউসুফ বিন জলিল কালু, রফিকুল ইসলাম, ২১ নম্বর ওয়ার্ডে লায়ন হারুন অর রশিদ, কামরুল ইসলাম সজল, মোনায়েম মুন্না, মোজাম্মেল হক, ২২ নম্বর ওয়ার্ডে অ্যাডভোকেট জয়নুল আবেদীন, আকন কুদ্দুসুর রহমান, অ্যাডভোকেড মোহাম্মদ আলী, অ্যাডভোকেট জিয়াউদ্দিন জিয়া, গোলাম রব্বানী, ডা. জাহিদুল কবীর, ২৩ নম্বর ওয়ার্ডে অধ্যক্ষ সেলিম ভূইঁয়া, রাশিদা বেগম হিরা, জাকির হোসেন, মো. সেলিম মিয়া, আলী আকবর চুন্নু ও সেকেন্দার আলী বেপারী। তাদের সাথে ছিলেন ধানের শীষ প্রতীকের প্রচারণায় কাউলতিয়া অঞ্চলের দায়িত্বপ্রাপ্ত কালিয়াকৈর পৌর মেয়র বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতা মজিবুর রহমান ও গাজীপুর সদর থানা বিএনপির সভাপতি সাবেক কাউলতিয়া ইউপি চেয়ারম্যান মুক্তিযোদ্ধা নাজিম উদ্দিন আহমেদ। গাজীপুর পৌর অঞ্চলে ২৪ নম্বর ওয়ার্ডে সেলিম রেজা হাবিব, আনিসুর রহমান তালুকদার খোকন, কৃষিবিদ হাসান জাফির তুহিন, আশরাফ উদ্দিন জনি, শিব্বির আহমেদ বুলু, ২৫ নম্বর ওয়ার্ডে আতাউর রহমান ঢালী, একরামুল হক বিপ্লব, সালাউদ্দিন ভূইঁয়া শিশির, কামাল আনোয়ার আহমেদ, বদরুল ইসলাম কটু, শহীদ তালুকদার, ২৬ নম্বর ওয়ার্ডে নাজিম উদ্দিন আলম, অ্যাডভোকেড রফিক শিকদার, হাসান মামুন, আব্দুল খালেক, এস.এম জাফর আলী, ২৭ নম্বর ওয়ার্ডে আমান উল্লাহ আমান, মাহবুবুল হক নান্নু, হায়দার আলী লেলিন, রোকসানা খানম মিতুয়া, এ.বি.এম মুকুল, আলী আশরাফ, ২৮ নম্বর ওয়ার্ডে সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, ওয়ারেস আলী মামুন, কাজী রফিক, আজিজুর রহমান নান্টু, রবিউল ইসলাম পলাশ, মাসুদ রানা, ২৯ নম্বর ওয়ার্ডে জয়নুল আবেদীন ফারুক, ইঞ্জিনিয়ার খালেদ হোসেন মাহবুব শ্যামল, শাহ শহীদ সারোয়ার, আমিনুল ইসলাম মহসিন, আনোয়ার হোসেন লালটু, ৩০ নম্বর ওয়ার্ডে শাহাজাদা মিয়া, খন্দকার মাশুকুর রহমান, ফোরকান-ই-আলম, রফিকুল ইসলাম, এম দীন মোহাম্মদ, ৩১ নম্বর ওয়ার্ডে শামা ওবায়েদ, ফিরোজ্জুজামান মোল্যা, মিসেস মাহমুদা হাবিবা, জেড. আই কামাল ও হাকিম আরজু। তাদের সাথে ছিলেন ধানের শীষ প্রতীকের প্রচারণায় গাজীপুর পৌর অঞ্চলের দায়িত্বপ্রাপ্ত বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতা অ্যাড. আব্দুস সালাম আজাদ ও গাজীপুর জেলা বিএনপির সহ-সভাপতি মীর হালিমুজ্জামান ননী।
গাছা অঞ্চলে ৩ নম্বর ওয়ার্ডে আলতাফ হোসেন চৌধুরী, কর্ণেল অব. মনি স্বপন দেওয়ান, মেজর অব. মিজান, মাসুম বিল্লাহ খান, জাকির হোসেন সিদ্দিকী, ৩৩ নম্বর ওয়ার্ডে মেজর জেনারেল অব. রুহুল আমিন, মেজর অব. হানিফ, আলাউদ্দিন জুয়েল, রুহুল আমিন আকিল, ৩৪ নম্বর ওয়ার্ডে নজির হোসেন, অ্যাড. খোরশেদ মিয়া, অ্যাড. মাহবুবুর রহমান, ইঞ্জিনিয়ার আতিকুর রহমান, হুমায়ুন কবির চৌধুরী, ৩৫ নম্বর ওয়ার্ডে আবুল হোসেন খান-বাকেরগঞ্জ, ড. মোর্শেদ হাসান খান, মোবাশে^র আলম ভূইঁয়া, মোস্তাফিজুর রহমান মনির, নুরুল ইসলাম খান মাসুদ, ৩৬ নম্বর ওয়ার্ডে আব্দুস সালাম, লে. কর্ণেল অব. জয়নাল আবেদীন, রেহেনা আক্তার রানু, আয়েশা সিদ্দিকা মানি, ফরহাদ উদ্দিন, মজিবুর রহমান, ৩৭ নম্বর ওয়ার্ডে কর্ণেল অব. লতিফ, শামসুজ্জামান সুরুজ, মিজানুর রহমান চৌধুরী (ছাতক), জাকির হোসেন মিজান, মোর্শেদ আলম মিল্টন, ৩৮ নম্বর ওয়ার্ডে ডা. শাখাওয়াত হাসান জীবন, আব্দুল ওয়াদুদ ভূইঁয়া, কাজী রওনাকুল ইসলাম টিপু ও মো. জমির হোসেন। তাদের সাথে ছিলেন ধানের শীষ প্রতীকের প্রচারণায় গাছা অঞ্চলের দায়িত্বপ্রাপ্ত বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতা ওমর ফারুক শাফিন ও গাছা সাংগঠনিক থানা বিএনপির সভাপতি মোশারফ হোসেন খান। পূবাইলল অঞ্চলে ৩৯ নম্বর ওয়ার্ডে নিতাই রায় চৌধুরী, এম.এ জলিল, ফরিদা মনি শহিদুল্লাহ, মিসেস জেবা খান, মোফাজ্জল হোসেন নিটোল, ৪০ নম্বর ওয়ার্ডে খায়রুল কবীর খোকন, সেলিমুজ্জামান সেলিম, জন গমেজ, এস. এ জিন্নাহ কবির, অ্যাড. মহিউদ্দিন লোবান, ৪১ নম্বর ওয়ার্ডে মোস্তাফিজুর রহমান বাবুল, আ.ক.ম মোজাম্মেল, আব্দুল মান্নান-উপজেলা চেয়ারম্যান, নিপুন রায় চৌধুরী, অমিত হাসান হাফিজ, ৪২ নম্বর ওয়ার্ডে ডা. এ. জেড. এম জাহিদ হোসেন, অর্পনা রায় দাস, ডা. রফিকুল ইসলাম, মিসেস জাহানারা বেগম, খন্দকার আব্দুল হামিদ ডাবলু, এলবার্ট পি.কষ্টা ও এ.জি.এম মাসুদ রাসেল। তাদের সাথে ছিলেন ধানের শীষ প্রতীকের প্রচারণায় পূবাইল অঞ্চলের দায়িত্বপ্রাপ্ত বিএনপির কেন্দ্রীয় সহ-স্বাস্থ্য বিষয়ক সম্পাদক ডা. রফিকুল ইসলাম বাচ্চু ও পূবাইল সাংগঠনিক থানা বিএনপির সভাপতি মো. সোলায়মান খান। টঙ্গী অঞ্চলে ৪৩ নম্বর ওয়ার্ডে আবুল খায়ের ভূইঁয়া, মোশতাক আহমদ, অ্যাড. খোরশেদ আলম মিয়া, দেবাশীষ রায় মধু, অ্যাড. শহিদুল ইসলাম, ৪৪ নম্বর ওয়ার্ডে মেজর অব. হাফিজ উদ্দিন আহমেদ, অ্যাড. মাসুদ আহমেদ তালুকদার, মাহবুব ইসলাম মাহবুব, মো. বেলাল হোসেন, ৪৫ নম্বর ওয়ার্ডে গিয়াস কাদের চৌধুরী, এ.বি.এম মোশাররফ হোসেন, অ্যাড. জাকির হোসেন ভূইঁয়া, আবু নাসের রহমাতুল্লাহ, ইমরুল কায়েস, ৪৬ নম্বর ওয়ার্ডে মো. আব্দুল হাই, হেলেন জেরিন খান, সাহিদা আক্তার রীতা, কামরুদ্দিন এহিয়া খান মজলিস, কামরুজ্জামান বিপ্লব, ৪৭ নম্বর ওয়ার্ডে ড. আসাদুজ্জামান রিপন, অ্যাড. জয়নুল আবেদীন মেজবাহ, ড. সামসুজ্জামান মেহেদী, শেখ মো. শামীম, অ্যাড. তাহেরুল ইসলাম তৌহিদ, আক্তারুজ্জামান বাচ্চু, ৪৮ নম্বর ওয়ার্ডে শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানি, এম.এ মতিন, দুলাল হোসেন, আবু বকর সিদ্দিক, আবুল কালাম আজাদ, ৪৯ নম্বর ওয়ার্ডে জহির উদ্দিন স্বপন, কামরুজ্জামান রতন, সাঈদ সোহরাব, রবিউল আউয়াল লাবলু, ইদ্রিস মিয়াজী মোহন, কাদের হালিমি, ৫০ নম্বর ওয়ার্ডে জয়নুল আবেদীন (ভিপি জয়নাল), মীর নেওয়াজ আলী, মাহমুদুল হক রুবেল, ফরিদ উদ্দিন আহমেদ, ৫১ নম্বর ওয়ার্ডে ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন, অ্যাড. মো. ইকবাল, ফরহাদ হোসেন আজাদ, অ্যাড. মো. আসলাম মিয়া, পারভেজ আল বাকী, ৫২ নম্বর ওয়ার্ডে আব্দুল হাই শিকদার, মনির খান, ওবায়দুর রহমান চন্দন, আনু মো. শামীম আজাদ, এস. এম জাহাঙ্গীর হোসেন, ৫৩ নম্বর ওয়ার্ডে অ্যাড. খন্দকার মাহবুব হোসেন, অ্যাড. সানা উল্লাহ মিয়া, জামাল শরীফ হিরু, সিমকি ইমাম খান, কাজী রহমান মানিক, ৫৪ নম্বর ওয়ার্ডে আব্দুল্লাহ আল নোমান, বেবী নাজনীন, শাহ মো. আবু জাফর, জিয়াউল হক শাহীন, ৫৫ নম্বর ওয়ার্ডে বেগম সেলিনা রহমান, শিরিন সুলতানা, ইয়াসমিন আরা হক, লিটা বসির, লায়লা বেগম, নুরজাহান মাহবুব, ফরিদা ইয়াসমিন, আবু তাহের পাটোয়ারী, ৫৬ নম্বর ওয়ার্ডে নাজমুল হক নান্নু, এ.টি.এম আব্দুল বারী ড্যানি, নজরুল ইসলাম আজাদ, বিল্লাল হোসেন তারেক, আসাদুজ্জামান নেসার এবং ৫৭ নম্বর ওয়ার্ডে চৌধুরী কামাল ইবনে ইউসুফ, আলী নেওয়াজ মাহমুদ খৈয়ম, ফয়সাল আলীম, মিসেস তাহমিনা আওরঙ্গ জেব, ব্যারিস্টার মীর হেলাল উদ্দিন, মিসেস নোয়াব ইউসুফ ও শাহবুদ্দিন ফারুক।
##