নবীগঞ্জে ২য় শ্রেণীর ছাত্রী ধর্ষণের শিকার

প্রকাশিত

নবীগঞ্জ প্রতিনিধি: হবিগঞ্জ জেলার নবীগঞ্জ উপজেলার হৈবতপুর গ্রামে প্রাইমারী স্কুলের ২য় শ্রেণীর ছাত্রীকে ধর্ষণ করেছে এক লম্পট। রক্তাক্ত অবস্থায় গতকাল রবিবার মেয়েটিকে হবিগঞ্জ সদর আধুনিক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

সূত্র জানায়, হৈবতপুর গ্রামের অতদরিদ্র কৃষক তৈয়ব আলীর কন্যা স্থানীয় সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ২য় শ্রেণীর ছাত্রী শনিবার বিকেলে বাড়ির পাশের হাওর ধানের খড় আনতে যায়। এ সময় মেয়েটিকে একা পেয়ে এক লম্পট জোরপূর্বক ধরে নির্জন স্থানে নিয়ে যায়।

পরে সেখানে মেয়েটিকে ধর্ষণ করা হয়। পরবর্তীতে মেয়েটি রক্তাক্ত অবস্থায় সন্ধ্যায় বাড়িতে ফিরে এ ঘটনা তার মা ও বাবাকে অবগত করে। শনিবার রাতে মেয়েটিকে নবীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্মরত চিকিৎসক তাকে আশংকাজনক অবস্থায় হবিগঞ্জ সদর আধুনিক হাসপাতালে রেফার করেন। মেয়েটির মা হাজেরা খাতুন জানান, নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিস ক্রয় করতে বাজারে গিয়েছিলাম।

আর আমার মেয়ে ধানের খড় আনতে হাওরে গিয়েছিল। হাওরে একা পেয়ে লম্পট আমার মেয়েটির ক্ষতি করেছে। কিন্তু কে এ ঘটনাটি ঘটিয়েছে তা এখনও নিশ্চিত হতে পারেননি মেয়েটির পরিবার। রবিবার সকালে হবিগঞ্জ সদর আধুনিক হাসপাতালের গাইনি বিশেষজ্ঞ ডাক্তার এসকে ঘোষের নেতৃত্বে মেডিকেল বোর্ড মেয়েটির পরীক্ষা করেন।

রবিবার রাত পর্যন্ত মেয়েটি শারীরিক অবস্থার উন্নতি হয়নি। ডাঃ এসকে ঘোষ জানান, মেয়েটির গোপন অঙ্গ দিয়ে প্রচুর রক্তক্ষরণ হচ্ছে। আমরা আন্তরিকভাবে মেয়েটির চিকিৎসা প্রদান করছি। নবীগঞ্জ থানার ওসি এসএম আতাউর রহমান জানান, এ ব্যাপারে কোন মামলা দায়ের করা হয়নি।