নাটোরে নারীসহ হেজবুত তওহীদের ১৯ কর্মী আটক

প্রকাশিত

নাটোর প্রতিনিধি : নাটোর জেলার বড়াইগ্রামে ‘জঙ্গি’ সন্দেহে তিন নারীসহ ১৯ জনকে আটক করেছে পুলিশ। আটকরা ‘জঙ্গি’ সংগঠন হেজবুত তওহীদের কর্মী বলে দাবি করেছে পুলিশ।

শুক্রবার (১৪ সেপ্টেম্বর) রাতে উপজেলার মাঝগাঁও ইউনিয়নের নোটাবাড়ীয়া গ্রামের একটি বাড়ি থেকে তাদের আটক করা হয়।

আটকরা হলেন, উপজেলার নোটাবাড়ীয়া গ্রামের সোহেল রানা (৩৫), জাহাঙ্গীর আলম (৩০), আব্দুস সালাম (৩৫), বনপাড়া পৌরসভার দিয়ারপাড়া গ্রামের বিপ্লব হোসেন (৩২) ও তার ভাই আব্দুর রাজ্জাক (২৮), সাজ্জাদ হোসেন (৩০), বনপাড়া গ্রামের শফিকুল ইসলাম (৩৯), কালিকাপুর গ্রামের আব্দুস সবুর খান (৩৫), আগ্রাণ গ্রামের বাদশা মিয়া (৪৪), পাবনার চাটমোহর উপজেলার চকপাড়া গ্রামের আকরাম হোসেন (৩৫), সদর থানার চরগোবিন্দপুর গ্রামের রফিকুল ইসলাম (৩১), রাজশাহী জেলার রাজপাড়া থানার বিলশিমলা গ্রামের আসাদুজ্জামান (৪৫), মতিহার থানার শ্যামপুর গ্রামের রবিউল করিম (৪৫), বোয়ালীয়া থানার তালাইমারি গ্রামের তোতা মিয়া (৫০), বগুড়া জেলার গাবতলী থানার জাহাঙ্গীর আলম (৫০), ঝিনাইদহ জেলার মহেষপুর গ্রামের শামসুজ্জামান মিলন (৩০), নরসিংদি জেলার সদর থানার পাথরপাড়া গ্রামের আফরোজা বেগম (৩৫), রাজশাহী জেলার চারঘাট থানার বালুদিয়ার গ্রামের লাভলী বেগম (৩৪) ও মেহেরপুর জেলার গাংনী থানার দেবীপুর গ্রামের বেনুর বেগম (৩৫)।

বড়াইগ্রাম থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) দিলিপ কুমার দাস বলেন, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে একটি সভা থেকে তাদের আটক করা হয়। আটক ব্যক্তিরা নিজেদের হেজবুত তওহীদ কর্মী বলে দাবি করেছেন। তারা আসলে কিসের সঙ্গে জড়িত এবং কী উদ্দেশ্যে সভা করছিলেন সে বিষয়ে খোঁজ নিতে জিজ্ঞাসাবাদ চলছে।

জিজ্ঞাসাবাদ শেষে তাদের বিষয়ে পরবর্তীতে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে বলে জানান এ কর্মকর্তা।