নেত্রকোনার মদনে কালভার্ট ভেঙ্গে মরণ ফাঁদে পরিণত

প্রকাশিত

নেত্রকোনা সংবাদদাতা: নেত্রকোনার মদন পৌর সদরে শহীদ আব্দুল কদ্দুছ মগড়া সেতুর পাশের কালভার্ট ভেঙ্গে মরণ ফাঁদে পরিণত হয়েছে। এতে করে এলাকার হাজার হাজার মানুষের চলাচলের চড়ম দুর্ভোগে পড়েছে। ফলে উপায় না পেয়ে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে ওই কালভার্টের ভয়ানক গর্তপার হতে হচ্ছে কোমলমতি শিক্ষার্থীসহ জনসাধারণকে।
সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে,শহীদ আব্দুল কদ্দুছ মগড়া সেতু থেকে প্রায় ২০/২৫ গজ পশ্চিমে মদন -খালিয়াজুরী ও তাড়াইল সড়কের একমাত্র জনগুরুত্বপূর্ণ মেইন রাস্তায় পানি নিষ্কাশনের এ কালভার্ট ভেঙ্গে পড়ে লোহার রড বেরিয়ে ভয়ানক গর্ত হয়ে মরণ ফাঁদে পরিনত হয়ে আছে। যে কোন সময়ে যে কেউ একটু অসর্তকতা হলেই ঘটতে পারে বড় ধরনের প্রাণহানীর ঘটনা বলে ধারণা করছেন এলাকাবাসী। তবে স্থানীয় ও যাতায়তকারীদের অভিযোগ প্রতিদিন উপজেলা পরিষদ ও পৌরসভার সকল কর্মকর্তা ও কর্মচারীরা এ কালভার্টটির উপর দিয়ে জীবনের ঝুঁিক নিয়ে নিজেরা যাতায়াত করলেও নজরে নিচ্ছে না ভয়ানক এ গর্তের দিকে। কালভার্টটি ভাঙ্গা থাকার ফলে প্রতিদিনই যানজটের সৃষ্টি হচ্ছে বিশাল আকারে।
এ নিয়ে ব্যবসায়ী হাজী আল মনসুরুল আলম আরিফ বলেন, পৌরসভার ভবনের পাশেই জনগুরুত্বপূর্ণ মেইন রাস্তার উপরে কালভার্টটি প্রায় ২/৩ মাস ধরে ভেঙ্গে পড়ে আছে। হাজার হাজার মানুষ জীবনের ঝুঁিক নিয়ে চলাচল করতে হচ্ছে। যে কোন ভারী যানবাহনের ঘটতে পারে দূর্ঘটনা। তারপরেও মেরামতের কোন পদক্ষেপ নিতে দেখা যাচ্ছে না। বিষয়টি খুবই দুঃখ জনক বলে তিনি মনে করছেন। এ ভাঙ্গা কালভার্টের গর্তে বড় কোন দুঘটনা ঘটার পরেই হয়তো বা তা নজরে আসতে পারে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের।
পৌর মেয়র আব্দুল হান্নান তালুকদার শামীম জানান, এ রাস্তাটি মূলত সড়ক ও জনপথ বিভাগের। আগামী সভায় বিষয়টি উপস্থাপন করব।
এ ব্যাপারে উপজেলা প্রকৌশলীতে যোগাযোগ করা হলে কালভার্টটি সড়ক ও জনপথ বিভাগের বলে তারা জানান।
এ নিয়ে নেত্রকোনা সড়ক ও জনপথ বিভাগের নিবার্হী প্রকৌশলী দিদারুল জানান,আসলে আমার জানা ছিল না,তবে দু’এক দিনের মধ্যে যাবো, সড়ক ও জনপথ বিভাগের হলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।
ছবি সংযুক্ত ঃ নেত্রকোনার মদন শহীদ আব্দুল কদ্দুছ মগড়া সেতুর পশ্চিম পাশে মরণ ফাঁদ কালভার্ট।