নোয়াখালীতে যুবলীগ কর্মীকে কুপিয়ে হত্যা

প্রকাশিত

নোয়াখালী প্রতিনিধি: জেলার বেগমগঞ্জ উপজেলায় মো. সোহাগ (৩০) নামে এক যুবলীগ কর্মীকে কুপিয়ে হত্যা করেছে প্রতিপক্ষরা বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

উপজেলার আমানতপুর গ্রামের ফরাজী বাড়ির সামনে বৃহস্পতিবার বেলা ১১টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। সোহাগ ফরাজী বাড়ির সেলিম ড্রাইভারের ছেলে এবং স্থানীয় যুবলীগের রাজনীতির সঙ্গে জড়িত।

বেগমগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ফিরোজ আলম নিহতের পরিবারের বরাত দিয়ে জানান, আমানতপুর গ্রামে নিজেদের বাড়ির পাশে চাচার দুটি মাছের প্রজেক্ট দেখাশুনা করতো সোহাগ। তাদের ওই প্রজেক্টের পাশে জিরতলী ইউনিয়নের মজুমদারহাট এলাকায় কালামের একটি মাছের প্রজেক্ট ছিল।

কালামের প্রজেক্ট থেকে মাছ চুরি করেছে সোহাগ এমন অভিযোগ আনে কালাম। এ নিয়ে কালাম ও তার কর্মচারী রুবেলের বুধবার রাত ১০টার দিকে সোহাগের সঙ্গে কথাকাটাকাটি হয়।

এরই জের ধরে বৃহস্পতিবার বেলা ১১টার দিকে রুবেল ও আরও কয়েকজন মিলে সোহাগের বাড়ির সামনে এসে তার ওপর হামলা চালায়। এসময় তারা সোহাগকে পিটিয়ে ও কুপিয়ে ফেলে রেখে যায়। পরে স্থানীয়রা সোহাগকে উদ্ধার করে নোয়াখালী সদর হাসপাতালে নিয়ে আসে। সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত বলে জানান।

ওসি আরও জানান, কামালের কর্মচারী রুবেলের নেতৃত্বেই এই হত্যার ঘটনা ঘটেছে। এই ঘটনার সঙ্গে জড়িতদের গ্রেফতারের চেষ্টাও চলছে।