পাটুরিয়া ঘাটের আগেই তল্লাশি চৌকি বসিয়েছে পুলিশ

প্রকাশিত

 

ঢাকা-আরিচা মহাসড়কের মানিকগঞ্জ বাসস্ট্যান্ড এলাকায় তল্লাশি চৌকি বসিয়েছে পুলিশ। অতি জরুরি প্রয়োজন ছাড়া সব যানবাহন ফিরিয়ে দেওয়া হচ্ছে। আজ দুপুরে মহাসড়কের মানিকগঞ্জ বাসস্ট্যান্ড এলাকায়। ছবি: আব্দুল মোমিনজরুরি প্রয়োজন ছাড়া মানিকগঞ্জের পাটুরিয়া ঘাটগামী ব্যক্তিগত গাড়ি ও মোটরসাইকেল আটকে দিচ্ছে পুলিশ। আজ রোববার সকাল থেকে ঢাকা-আরিচা মহাসড়কের মানিকগঞ্জ বাসস্ট্যান্ড এলাকায় তল্লাশি চৌকি বসিয়ে এসব যানবাহন ফেরত পাঠানো হচ্ছে।

পুলিশ জানায়, আজ থেকে পোশাক কারখানা খোলার কথা ছিল। তাই গতকাল শনিবার দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে শত শত শ্রমিক ঢাকার পথে রওনা দেন। সামাজিক দূরত্ব বজায় না রেখে এবং স্বাস্থ্য বিধি না মেনে হাজারো শ্রমিকের ঢাকায় ফেরায় করোনাভাইরাসে সংক্রমিত হওয়ার চরম ঝুঁকি দেখা দেয়। এ নিয়ে বিভিন্ন মহলের উদ্বেগ প্রকাশের মুখে শনিবার রাতেই পোশাক শিল্প মালিকদের সংগঠন বিজিএমইএ পোশাক কারখানা ১১ এপ্রিল পর্যন্ত ছুটি ঘোষণা করে। আবার যাতে শ্রমিকেরা দল বেঁধে বাড়ি ফিরতে না পারেন, সে জন্য সকাল থেকে ঢাকা-আরিচা মহাসড়কের মানিকগঞ্জ বাসস্ট্যান্ড এলাকায় তল্লাশি চৌকি বসায় জেলা পুলিশ।

সরেজমিনে দেখা যায়, মানিকগঞ্জ বাসস্ট্যান্ড এলাকায় পদচারী সেতুর নিচে পুলিশের তল্লাশি চৌকি। সেখানে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) ভাস্কর সাহার নেতৃত্বে থানা ও ট্রাফিক পুলিশের ১০-১২ জন সদস্য দায়িত্ব পালন করছেন। সকালে কয়েকটি ব্যাটারিচালিত ইজিবাইক, মোটরসাইকেল ও প্রাইভেটকারে করে অল্পসংখ্যক পোশাক শ্রমিক মহাসড়কের বাসস্ট্যান্ডের অদূরে নারাঙ্গাই এলাকায় আসেন। এর পর তাঁরা পায়ে হেঁটে পাটুরিয়ার অভিমুখে রওনা দেন।

এ দিকে মোটরসাইকেল ও প্রাইভেটকারে করে যাঁরা পাটুরিয়া যাচ্ছিলেন, এসব গাড়িকে ফের ঢাকার দিকে ফিরিয়ে দেন তল্লাশিচৌকির পুলিশ সদস্যরা। বেলা ১২ টার দিকে মানিকগঞ্জ বাসস্ট্যান্ড এলাকা প্রায় জনশূন্য। জরুরি পণ্যবাহী বিভিন্ন যান চলাচল করতে দেখা যায়। এসব যান দেশের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলে নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্য নিয়ে যাচ্ছিল।

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) ভাস্কর সাহা বলেন, জরুরি পণ্যবাহী যান ছাড়া কোনো যানবাহনকেই চলাচল করতে দেওয়া হচ্ছে না। জরুরি প্রয়োজন ছাড়া প্রাইভেটকার ও মোটরসাইকেল নিয়ে যাঁরা বেড়িয়েছেন, তাঁদের উল্টো পথে ফিরিয়ে দেওয়া হচ্ছে।

এ দিকে পোশাক শিল্প কারখানা আবারও ছুটি ঘোষণা করায় মানিকগঞ্জে পাটুরিয়া ও রাজবাড়ীর দৌলতদিয়া নৌপথে আজ সকাল ছয়টা থেকে ফেরি চলাচল বন্ধ ঘোষণা করা হয়। শুধু দুটি ছোট ফেরি দিয়ে লাশ ও রোগীবাহী অ্যাম্বুলেন্স ও প্রশাসনের দায়িত্বে থাকা গাড়ি পারাপার করা হচ্ছিল। জরুরি পণ্যবাহী যানবাহন পরে পারাপারের জন্য অপেক্ষমাণ রাখা হয়েছিল।

এ বিষয়ে বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন সংস্থার (বিআইডব্লিউটিসি) আরিচা কার্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত উপমহাব্যবস্থাপক (বাণিজ্য) জিল্লুর রহমান দুপুরে প্রথম আলোকে বলেন, কর্তৃপক্ষের নির্দেশে পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া নৌপথে ফেরি চলাচল বন্ধ রয়েছে। তবে শুধু লাশ ও রোগীবাহী অ্যাম্বুলেন্স পারাপার করা হচ্ছে। কোনো যাত্রী পারাপার করা হচ্ছে না। জরুরি ও নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যবাহী যান আপাতত বন্ধ রয়েছে। কর্তৃপক্ষের নির্দেশনা অনুযায়ী, এসব যান দ্রুত সময়ের মধ্যে পারাপার করা হবে।