পুলিশের ভয়ে চৌকির নিচে বাবা, অন্ধকারে উধাও কাজী

প্রকাশিত

পাত্রের বয়স ১৮। তাকে ঘিরে বসেছিলেন সবমিলিয়ে ২০ জনের মতো বরযাত্রী। অন্যদিকে ১১ বছরের কনে ফুঁপিয়ে ফুঁপিয়ে কাঁদছে। তবে সেদিকে ভ্রক্ষেপ নেই কারো। কাজী, রেজিস্ট্রার সবাই উপস্থিত। তাদের সামনে কনে ‘কবুল’ বললেই সব ঝামেলা চুকে যায়।

কিন্তু এরই মাঝে গোল বাধালেন রেজিস্ট্রার, ‘বর-কনে দু’জনেই তো নাবালক। তিন হাজার রুপি খরচা করতে হবে।’ তবে বাড়ির লোকজন বারোশ’ রুপির বেশি দিতে রাজি নন।

এমন পরিস্থিতিতে পৌষের রাতের অন্ধকার ফুঁড়ে ভারতের পশ্চিম বঙ্গের মুর্শিদাবাদ জেলার খলিলাবাদ এলাকার বাড়িটির সামনে এসে থামে দু’টি গাড়ি। প্রথম গাড়িটি ব্লক ডেভেলপমেন্ট অফিসারের (বিডিও) কার্যালয়ের, যে গাড়িতে ছিলেন স্বেচ্ছাসেবী সংস্থার কর্মী জাকিরুন বিবি ও কন্যাশ্রী যোদ্ধা শবনম আনসারি। পেছনের গাড়িটি ছিল পুলিশের।

গাড়ি দু’টি দেখে মুহূর্তেই নিজের মোটরসাইকেল ফেলে অন্ধকার ক্ষেত ধরে ছুট দেন রেজিস্ট্রার। তাকে অনুসরণ করেন কাজী। ভোজবাজির মতো হাওয়া হয়ে যায় বরযাত্রীরাও। আর কনে মোমিনা খাতুন হাপ ছেড়ে বাঁচে। স্বেচ্ছাসেবী কর্মী জাকিরুনকে জড়িয়ে ধরে সে বলে, ‘জানতাম আপা, তুমি আসবে।’

বিডিও অফিসের লোকজন ও পুলিশ বাড়ির ভেতরে ঢুকে অন্যদের খোঁজ করে। তবে ৯ বছর বয়সী এক মেয়ে জানায়, বাড়িতে কেউ নেই। তবে মেয়েটির কথায় মন ভরেনি পুলিশের। তারা বাড়িতে তল্লাশি শুরু করে। আর চৌকির তলায় টর্চের আলো ফেলতেই সেখানে দেখা মেলে কনের বাবা মোমিন শেখের। কাঁথা সরিয়ে বেরিয়ে আসেন তিনি।

গত বুধবার রাতের এ ঘটনায় ততক্ষণে হইচই পড়ে গেছে মুর্শিদাবাদের খলিলাবাদ এলাকায়। কিন্তু বাল্যবিয়ে ঠেকিয়ে দেওয়া ঘটনাটি ঘটলো কি করে?

জাকিরুন জানান, মোমিনা নিশ্চিত ছিল না ঠিক কবে বিয়ে। কিন্তু আন্দাজ করে বন্ধুদের জানিয়ে রেখেছিল। বুধবার তাদের বাড়ি বন্ধ দেখেই সন্দেহ হয় কন্যাশ্রী যোদ্ধাদের।

মুখে সাফল্যের হাসি ছড়িয়ে জাকিরুন বলেন, ‘‘ছয় মাসে ৫১টি নাবালিকার বিয়ে রুখে দেওয়া গেল।’

হরিহরপাড়ার যুগ্ম বিডিও উদয়কুমার পালিত বলেন, ‘কোন রেজিস্ট্রার ও কাজী বিয়ে পড়াতে এসেছিলেন, খোঁজ নেওয়া হচ্ছে। মোমিনার লেখাপড়ার দায়িত্ব এখন থেকে আমাদের।’

তিনি জানান, মেয়েটির বাবা মুচলেকা দিয়েছেন, মেয়ে সাবালিকা না হওয়া পর্যন্ত বিয়ে দেবেন না। আর মোমিনার মাও বলেছেন, এমন ভুল দ্বিতীয়বার আর করবেন না তারা।

Be the first to write a comment.

Leave a Reply