প্রধানমন্ত্রীর জন্য ঢাকা, গাজীপুরসহ সারা দেশে মিলাদ মাহফিল অনুষ্ঠিত

প্রকাশিত

শেখ রাজীব হাসান আকাশ,চ্যানেল সিক্সঃ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সুস্বাস্থ্য ও দীর্ঘায়ু কামনা করে রাজধানী ঢাকা এবং গাজীপুরসহ সারা দেশে মিলাদ মাহফিল ও দোয়া-মোনাজাত অনুষ্ঠিত হয়েছে।

শুক্রবার জুমার নামাজের পর রাজধানীর বায়তুল মোকাররম মসজিদে মিলাদ মাহফিল শেষে দোয়া ও মোনাজাত অনুষ্ঠিত হয়। মিলাদ ও মোনাজাত পরিচালনা করেন বায়তুল মোকররম জাতীয় মসজিদের সিনিয়র পেশ ইমাম হাফেজ মাওলানা মুহাম্মদ মিজানুর রহমান।

মোনাজাতে প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বে সমৃদ্ধশালী বাংলাদেশের অগ্রযাত্রার জন্য মহান আল্লাহ দরবারে প্রার্থনা করা হয়। যে কোনো ষড়যন্ত্র, চক্রান্ত থেকে প্রধানমন্ত্রীসহ দেশ ও জাতি যেন রক্ষা পায়, সেজন্য মহান আল্লাহর সাহায্য কামনা করা হয়। বিশেষ করে দেশ ও জাতির সুখ-শান্তি, সমৃদ্ধি কামনা করে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এবং তার পরিবারের শহীদদের রূহের মাগফিরাত কামনা করা হয়।

বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদের দোয়া মাহফিলে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক, সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের এমপি, খাদ্যমন্ত্রী কামরুল ইসলাম এমপি, আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব-উল আলম হানিফ এমপি, জাহাঙ্গীর কবির নানক এমপি, ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক অ্যাডভোকেট শেখ মোহাম্মদ আবদুল্লাহ, ইসলামিক ফাউন্ডেশনের মহাপরিচাক শামীম মোহাম্মদ আফজাল, ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শাহে আলম মুরাদসহ আওয়ামী লীগের জাতীয় ও মহানগর নেতারা, ইসলামিক ফাউন্ডেশনের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা এবং সর্বস্তরের ধর্মপ্রাণ মুসল্লি অংশ নেন।

গাজীপুর মহানগর যুবলীগের যুগ্ন আহবায়ক মো: সুমন আহমেদ শান্ত বাবুর আয়োজনে দেশরত্ন, রাষ্ট্রনায়ক মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জন্মদিনে তার দীর্ঘায়ু ও সুস্থতা কামনা করে মিলাদ মাহফিল শেষে দোয়া ও মোনাজাত অনুষ্ঠিত হয়। এতে গাজীপুর মহানগরের ও বিভিন্ন থানার এবং ওয়ার্ডের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

এর আগে সকালে ইসলামিক ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হায়াত কামনা করে বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদে কোরআনখানি, মিলাদ ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়।

রাজধানী ছাড়াও চট্টগ্রামের জমিয়তুল ফালাহ জাতীয় মসজিদসহ সারা দেশে প্রধানমন্ত্রীর জন্য দোয়া মাহফিলের আয়োজন করে ইসলামিক ফাউন্ডেশন।

ইসলামিক ফাউন্ডেশনের মসজিদভিত্তিক শিশু ও গণশিক্ষা কার্যক্রম প্রকল্পের ৬৭ হাজার ৩৬৮টি গণশিক্ষা কেন্দ্র, ১০১০টি দারুল আরকাম ইবতেদায়ী মাদ্রাসা, ইসলামিক মিশনের ৪৪৯টি মক্তব, ২৬টি ইবতেদায়ি মাদ্রাসা, ৫৪১টি মসজিদ পাঠাগারসহ মোট ৬৯ হাজার ৩৯৪টি স্থানে প্রধানমন্ত্রীর জন্য মিলাদ ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়।