প্রবাসে প্রথম বারের মতো পালিত হলো মিরপুর মুক্ত দিবস

প্রকাশিত

ডেস্ক নিউজঃ প্রবাসে প্রথমবারের মতো পালিত হলো মিরপুর মুক্ত দিবস। ১৯৭১-এর ১৬ ডিসেম্বর বাংলাদেশ স্বাধীন হলেও মিরপুরের একটি বিশেষ এলাকা হাজার হাজার পাকিস্তানি বসবাসকারীর দখলে থেকে যায়। ১৯৭২-এর ৩১ জানুয়ারি তারা আত্মসমর্পণ করে। গত কয়েক বছর বাংলাদেশে ৩১ জানুয়ারিকে মিরপুর মুক্ত দিবস হিসেবে পালন করলেও এই প্রথম প্রবাসে মিরপুর মুক্ত দিবস পালন করলো ‘হৃদয়ে বাংলাদেশ নামে একটি সংগঠন। সেচ্ছাসেবী, সামাজিক ও সাংস্কৃতিক এই সংগঠনটি গতকাল বৃহস্পতিবার নিউইয়র্কে যথাযথ মর্যাদায় দিবসটি উদযাপন করে।
দিবসটি উদযাপন উপলক্ষ্যে এদিন সন্ধ্যায় ব্রঙ্কসের স্টারলিং-বাংলাবাজার-ওলমস্টেড এভিনিউর এশিয়ান সেন্টারে অনুষ্ঠিত হয় মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক পরিবেশনা, প্রামাণ্য চিত্র প্রদর্শণী, আবৃত্তি ও আলোচনা সভা। দুর্যোগপূর্ণ আবহাওয়াকে উপেক্ষা করে অনুষ্ঠানে অংশ নেন কবি, সাহিত্যিক, সাংবাদিক, ব্যবসায়ী, সংস্কৃতিকর্মী, সমাজকর্মী, রাজনীতিবিদসহ বহু প্রবাসী বাংলাদেশী।
হৃদয়ে বাংলাদেশ’র সভাপতি বিশ্বজয়ী সাইকেলিষ্ট সাইদুর রহমান লিংকনের সভাপতিত্বে এবং সাংবাদিক শামিম আহমেদের পরিচালনায় অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন একুশে চেতনা পরিষদ যুক্তরাষ্ট্র’র সভাপতি ওবায়দুল্লাহ মামুন, ইউএসএনিউজঅনলাইন.কম এবং সাপ্তাহিক জনতার কন্ঠ’র সম্পাদক সাখাওয়াত হোসেন সেলিম, কমিউনিটি এক্টিভিস্ট-রাজনীতিক রফিকুল ইসলাম, সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক পল্লব সরকার, সাংগঠনিক সম্পাদক সৈয়দ কামরুজ্জামান ফয়েজ, কোষাধ্যক্ষ মাকসুদা আহমেদ প্রমুখ।
বক্তারা বলেন, ১৯৭১ সালের ১৬ ডিসেম্বর বাংলাদেশ স্বাধীন হলেও ঢাকার মিরপুর পাকিস্তানি হানাদারমুক্ত হয় ১৯৭২ সালের ৩১ জানুয়ারী। ওই দিন মিরপুরে পাক-হানাদার বাহিনী চূড়ান্তভাবে আত্মসমর্পণ করে। হৃদয়ে বাংলাদেশ যুক্তরাষ্ট্রে এধরনের মহৎ অনুষ্ঠানের মাধ্যমে অনুকরণীয় দৃষ্টান্ত স্থাপন করলো। এটা একটা ইতিহাস হয়ে রইলো। আমরা যারা আজ এই অনুষ্ঠানে উপস্থিত আছি তারা এই ইতিহাসের অংশ হয়ে রইলাম। এটা একটি শুরু। কোন কিছু ছোট করে কাউকে না কাউ শুরু করতে হয়। আস্তে আস্তে তা বড় হয়। এবং এক সময় তা ছড়িয়ে পড়ে দিগন্ত ব্যাপী।
অনুষ্ঠানে প্রদর্শিত প্রামাণ্য চিত্রে বুদ্ধিজীবী হত্যা সহ মিরপুরে পাক-হানাদার বাহিনীর বর্বরেচিত হত্যা-নির্যাতন-তান্ডব লীলার লোমহর্ষক ধারাবিবরণী তুলে ধরা হয়।
সমবেত কন্ঠে বাংলাদেশের জাতীয় সংগীত পরিবেশনের মধ্যে দিয়ে অনুষ্ঠান শুরু হয়। অনুষ্ঠানে সঙ্গীত পরিবেশন করেন সাধন ব্র্যান্ডের সৈয়দ কামরুজ্জামান ফয়েজ। আবৃত্তিতে অংশ নেন জুঁই ইসলাম, পল্লব সরকার, সৈয়দ কামরুজ্জামান ফয়েজ, আনোয়ার হোসেন বাবর প্রমুখ। মনমুগ্ধকর নানা পরিবেশনা বিজয় উৎসবের আনন্দে যোগ করে ভিন্ন মাত্রা।
হৃদয়ে বাংলাদেশ’র সভাপতি সাইদুর রহমান লিংকন অনুষ্ঠান সফলভাবে সম্পন্ন হওয়ায় সংশ্লিষ্ট সকলের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানান। তিনি বলেন, দুর্যোগপূর্ণ আবহাওয়াকে উপেক্ষা করে “হৃদয়ে বাংলাদেশ”র ডাকে সাড়া দিয়ে “মিরপুর মুক্ত দিবস” অনুষ্ঠানকে সফল করার জন্যে সকলকে আন্তরিকভাবে ধন্যবাদ।
অনুষ্ঠানের সার্বিক তত্ত্বাবধানে ছিলেন সংগঠনের সভাপতি সাইদুর রহমান লিংকন, সহ সভাপতি মামুন রহমান, সাধারণ সম্পাদক পল্লব সরকার, সাংগঠনিক সম্পাদক সৈয়দ কামরুজ্জামান ফয়েজ, কোষাধ্যক্ষ মাকসুদা আহমেদ, প্রচার সম্পাদক রায়হান জামান রানা, কার্যকরী সদস্য মাসুদ রানা ও নীলোৎফল সরকার।
উল্লেখ্য, ১৯৭২ সালের ৩১ জানুয়ারী ঢাকার মিরপুর পাকিস্তানি হানাদারমুক্ত হয়। ওই দিন মিরপুরের পাক-হানাদার বাহিনী চূড়ান্তভাবে আত্মসমর্পণ করে। মুক্ত এলাকায় উড়ে স্বাধীন বাংলাদেশের লাল সবুজের পতাকা।

রিপোর্টটি তৈরীতে ইউএসএনিউজ অনলাইনের সহায়তা নেয়া হয়েছে।