ফোন করলেই পুলিশ পৌঁছে দিবে অক্সিজেন!

প্রকাশিত
রাজশাহী প্রতিনিধি-
করোনায় আক্রান্ত সাধারণ জনগণ ও দায়িত্বরত পুলিশ সদস্যদের বিনা মূল্যে অক্সিজেন পৌঁছে দেবে আরএমপি পুলিশ। এ লক্ষে রাজশাহী মেট্রোপলিটন পুলিশে (আরএমপি) ৫০ টি অক্সিজেন সিলিন্ডারের সমন্বয়ে গঠিত হয়েছে ‘পুলিশ কোভিড অক্সিজেন ব্যাংক’।
আজ মঙ্গলবার (১৫ জুন) বেলা ১২ টায় রাজশাহী মেট্রোপলিটন পুলিশের (আরএমপি) পুলিশ কমিশনার মো. আবু কালাম সিদ্দিক প্রধান অতিথি হিসেবে ‘পুলিশ কোভিড অক্সিজেন ব্যাংক’ এর উদ্বোধন করেন।
এসময় আরএমপি পুলিশ কমিশনার মো. আবু কালাম সিদ্দিক বলেন, করোনার সেকেন্ড ওয়েভের কারণে বেড়েছে আক্রান্তের হার। এতে অনেক গরীব, অসহায় প্রয়োজনের সময় অক্সিজেন পাচ্ছেন না, এতে অনেকেই মারা যাচ্ছেন অক্সিজেনের অভাবে। এই সঙ্কটের কথা চিন্তা করে সাধারণ জনগণ ও দায়িত্বরত পুলিশ সদস্যসহ যেকোনো করোনা আক্রান্ত রোগীদের বিনা মূল্যে অক্সিজেন পৌঁছে দেওয়ার লক্ষ্যে ‘পুলিশ কোভিড অক্সিজেন ব্যাংক’ গঠন করা হয়েছে।
তিনি বলেন, রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাপসাতাল ব্যতীত রাজশাহীর অন্যান্য হাসপাতাল ও ক্লিনিকসমূহে সেন্ট্রাল অক্সিজেন নেই। অপরদিকে রামেক হাসপাতালে ক্রমেই করোনা রোগী বাড়ছে। এছাড়াও নতুন ওয়ার্ডগুলোতে অক্সিজেন সিস্টেম চালু করতে সময় লাগবে অন্তত পক্ষে ২ থেকে ৩ মাস। এসব কথা ভেবেই আরএমপির পক্ষ থেকে ‘পুলিশ কোভিড অক্সিজেন ব্যাংক’ গঠন করা হয়েছে।
এতে আপাতত ৫০টি অক্সিজেন সিলিল্ডার দিয়ে এই কার্যক্রমের যাত্রা শুরু হয়। দু’এক দিনের মধ্যেই এ সংখ্যা ১০০ তে উন্নীত করা হবে। পর্যায়ক্রমে প্রয়োজন অনুসারে আরো অক্সিজেন সিলিন্ডার সংযোজন করা হবে বলেও জানিয়েছেন তিনি।
পুলিশ কমিশনার আরও জানান, কোভিড আক্রান্ত হয়ে শ্বাসকষ্টে কেউ ভুগছেন এমন সংবাদ আরএমপির কন্ট্রোল রুমের ০১৩২০-০৬৩৯৯৮ নাম্বারটিতে মোবাইল করলেই মিলবে সেবা। আরএমপির পক্ষ থেকে রোগীর বাড়ীতে অক্সিজেন সিলিন্ডারসহ পৌঁছে যাবে পুলিশ। এ সেবা সম্পূর্ণরূপে বিনা মূল্যে প্রদান করা হবে বলে পুলিশ কমিশনার তাঁর বক্তব্যে উল্ল্যেখ করেন।
এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন- অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার (প্রশাসন) মো. সুজায়েত ইসলাম, অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার (ক্রাইম এন্ড অপারেশন) মো. মজিদ আলী বিপিএম, উপ-পুলিশ কমিশনার (সদর) মো. রশীদুল হাসান পিপিএম ও উপ-পুলিশ কমিশনার (বোয়ালিয়া) মো. সাজিদ হোসেন সহ আরএমপির উর্ধ্বতন কর্মকর্তাবৃন্দ।
‘পুলিশ কোভিড অক্সিজেন ব্যাংক’ এ মূলত কারা অগ্রাধিকার পাবেন এবং কিভাবে এ সেবা প্রদান করা হবে? প্রশ্ন করা হলে আরএমপি অতিরিক্ত সহকারী পুলিশ কমিশনার ও পুলিশের নগর মুখপাত্র গোলাম রুহুল কুদ্দুস জানান, যেহেতু বর্তমানে রামেকে রোগীর সংখ্যা বেশী, সে তুলনায় অক্সিজেন সঙ্কট রয়েছে। সেই কথা বিবেচনা করে যে কোনো ভুক্তভোগীর বাসায় এ সেবা পৌঁছে দেওয়া হবে। তবে যে আগে কল করবেন, তিনি আগে সুবিধা পাবেন।
তিনি আরও জানান, আজ (মঙ্গলবার) থেকেই কনস্টবল, এএসআই, এসআই ও ইন্সপেক্টর পদের ১০ জনকে প্রাথমিক পর্যায়ে এ অক্সিজেন সিলিন্ডার ব্যবহার, সিলিন্ডার স্পিড মাত্রা নির্ধারণ, রিফিলের কাজ  রপ্ত করানো হয়েছে। ক্রমান¦য়ে তাদের সংখ্যা বাড়ানো হবে। দেওয়া হবে প্রয়োজনীয় ট্রেনিং। এছাড়াও  যেকোন স্বেচ্ছাসেবী প্রতিষ্ঠানের সদস্যগণও আরএমপির এ ট্রেনিং বিনা খরচে গ্রহণ করতে পারবেন। আর এসমস্ত বিষয় আরএমপির লজিষ্টিক বিভাগ মনিটরিং করবে বলে জানান পুলিশের এই উর্ধ্বতন কর্মকর্তা।