‘বঙ্গবন্ধুর খুনিদের দেশে এনে দণ্ড কার্যকরের চেষ্টা অব্যাহত’

প্রকাশিত

নিজস্ব প্রতিবেদক, সংসদ থেকে :স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেছেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের খুনিদের দেশে ফিরিয়ে এনে দণ্ড কার্যকর করার জন্য সর্বাত্মক চেষ্টা অব্যাহত আছে। এ লক্ষ্যে ২০১০ সালের ২৮ মার্চ একটি টাস্কফোর্স গঠন করা হয়। ২০১৩ সালের ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত টাস্কফোর্স দণ্ডপ্রাপ্ত খুনিদের অবস্থান চিহ্নিত করা এবং দেশে ফিরিয়ে আনার লক্ষ্যে সর্বাত্মক কার্যক্রম গ্রহণ করে।

রোববার সংসদে লক্ষ্মীপুর-৪ আসনের সংসদ সদস্য মো. আব্দুল্লাহর প্রশ্নের জবাবে তিনি এসব কথা বলেন।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, জাতির পিতার খুনিদের ফিরিয়ে আনতে ইন্টারপোলের মাধ্যমে গুরুত্বপূর্ণ আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে তাদের ছবি সংবলিত তথ্য প্রেরণ করা হয়েছে। পলাতক আসামিদের মধ্যে অবসরপ্রাপ্ত লেফটেন্যান্ট কর্নেল খন্দকার আবদুর রশিদের মালিকানাধীন ১৬ দশমিক ৯৪ একর, রাশেদ চৌধুরীর ১ দশমিক ১৫ একর জমি বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে। এছাড়া কানাডায় অবস্থানরত নূর চৌধুরী এবং যুক্তরাষ্ট্রে অবস্থানরত অবসরপ্রাপ্ত মেজর আবু মোহম্মদ রাশেদ চৌধুরীকে ফেরত আনতে ল ফার্মের কার্যক্রম অব্যাহত আছে। অন্য পলাতক খুনিদের অবস্থান চিহ্নিত করতে ইনটারপোলের মাধ্যমে রেড এলার্ট জারি করা হয়েছে বলে জানান মন্ত্রী।

সংসদ সদস্য বজলুল হক হারুনের (ঝালকাঠি-১) এক লিখিত প্রশ্নের জবাবে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, গত বছরের (২০১৭) জানুয়ারি থেকে ডিসেম্বর পর্যন্ত বিজিবি কর্তৃক ১ হাজার ২১৭ কোটি ৫৫ লাখ ৭৪ হাজার ৪৮৭ টাকা মূল্যের চোরাচালানি পণ্য জব্দ করা হয়েছে। এসব মালামাল জব্দকালে ২ হাজার ৫০৬ জন চোরাকারবারিকে আটক করা হয়েছে। তাদের বিরুদ্ধে ২৫ হাজার ১৫২টি মামলা দায়ের করা হয়েছে।

দিদারুল আলমের (চট্টগ্রাম-৪) প্রশ্নের জবাবে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ২০১৩ সাল থেকে ২০১৭ সালের এপ্রিল পর্যন্ত সারা দেশে ৯ হাজার ৯৪৫টি সড়ক দুর্ঘটনা হয়েছে।