বনভোজনের বাস নদীতে পরে গিয়ে ২জনের মৃত্যু ও আহত ২৫!

প্রকাশিত

জয়পুরহাট প্রতিনিধিঃ জয়পুরহাট থেকে নওগাঁয় বনভোজনে আসা বাস তুলসিগঙ্গা নদীতে ডুবে দুইজনের মৃত্যু হয়েছে। এ ঘটনায় কমপক্ষে ২৫জন আহত হয়েছেন। আহতদের উদ্ধার করে নওগাঁ সদর হাসপাতাল ও রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় এ হতাহতের ঘটনা ঘটেছে। আহতদের মধ্যে দুইজন শিশুর অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় রাজশাহীতে স্থানান্তর করা হয়েছে। নিহত একজন শিক্ষার্থীর অভিভাবক লিটন। অপরজন বাবুর্চি জাহিদুল ইসলাম।

নওগাঁ সদর হাসপাতালে ভর্তিকৃত আহতরা হলো- মালেকা, মুজিবুল, সানিপিহা, লিমা, তাস, নুশরাত, লায়লা, তপন, সাদিয়, লিটন, জদিুল, রিয়া, নাজিম, রায়হানসহ ২৫জন। আসিবসহ দুইজন শিশুকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়েছে।

স্থানীয় ও পুলিশ সূত্র জানিয়েছে, জয়পুরহাটের কালাই উপজেলার মোলামগাড়ী বাজার থেকে ব্রাইট ফিউচার কিন্ডার গার্টেনের ৭০জন শিক্ষক, শিক্ষার্থী ও অভিভাবক মিলে বৃহস্পতিবার দুপুরে নওগাঁ শহরের ভবানিপুর এলাকা ডানা পার্কে বাসযোগে আসেন। বনভোজন শেষে নওগাঁ শহর হয়ে ফেরার পথে বাস নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে পার-নওগাঁ তুলসিগঙ্গা নদীতে পরে যায়। এতে বাসের দুইজন ঘটনাস্থলেই লিটন এবং জাহিদুল ইসলাম মারা যান। এতে বাসে থাকা শিক্ষার্থীদের মধ্যে কমপক্ষে ২৫জন আহত হয়েছেন।

নওগাঁ ফায়ার সার্ভিস উপ-সহকারী পরিচালক একে এম মোর্শেদ জানান, সংবাদ পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের তিনটি ইউনিট গিয়ে দ্রুত হতাহত ও বাসটিকে উদ্ধার করে।

নওগাঁ সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আনোয়ার হোসেন জানান, আহত শিশুদের মধ্যে দুই শিশুর অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় রাজশাহীতে স্থানান্তর করা হয়েছে। এ ব্যাপারে থানায় একটি মামলা দায়েরের প্রক্রিয়া চলছে।