বরিশালে গৃহবধূ হত্যায় স্বামীসহ চারজনের যাবজ্জীবন

প্রকাশিত

বরিশাল প্রতিনিধি : বরিশালে গৃহবধূকে হত্যার দায়ে তার স্বামীসহ চারজনকে যাবজ্জীবন সশ্রম কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। এছাড়া প্রত্যেক আসামিকে ১০ হাজার টাকা করে জরিমানা, অনাদায়ে আরও ৬ মাসের কারাদণ্ডের আদেশ দেওয়া হয়েছে।

বরিশাল জননিরাপত্তা অপরাধ দমন ট্রাইবুনালের বিচারক মো. মহসিন উল হক বুধবার এ রায় ঘোষণা করেন।

দণ্ডপ্রাপ্তরা হলেন— নিহত গৃহবধূর স্বামী আলমগীর সরদার, লিটন গাজী, কামাল হাওলাদার ও রিপন সরদার। তাদের বাড়ি মুলাদী উপজেলার চরসাহেবপুর গ্রামে। এদের মধ্যে কামাল হাওলাদার পলাতক।

মামলার বিবরণে জানা যায়, আলমগীর সরদার তার স্ত্রী ও সন্তান থাকা সত্ত্বেও তথ্য গোপন রেখে ঢাকায় শাহনাজ বেগম নামে একজনকে বিয়ে করেন। দ্বিতীয় স্ত্রীকে নিয়ে মুলাদীর গ্রামের বাড়িতে আসার পর আলমগীর সরদারের প্রথম স্ত্রী ও সন্তান থাকার বিষয়টি নিশ্চিত হন শাহনাজ। এজন্য তিনি প্রতারণার অভিযোগে স্বামী আলমগীর সরদারের বিরুদ্ধে নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে মামলা করার হুমকি দেন। এতে ক্ষুব্ধ হয়ে অপর আসামিদের সহযোগিতায় আলমগীর সরদার ২০১১ সালের ২৮ অক্টোবর মধ্যরাতে শাহনাজকে কুপিয়ে হত্যার পর লাশ নদীতে ফেলে দেন। পরদিন সকালে গ্রামবাসী লাশ দেখতে পেয়ে থানায় খবর দিলে পুলিশ গিয়ে লাশ উদ্ধার করে।

এ ঘটনায় মুলাদী থানার তৎকালীন উপ পরিদর্শক উত্তম কুমার অজ্ঞাতনামাদের আসামি করে একটি হত্যা মামলা করেন। পরে জেলা গোয়েন্দা পুলিশের পরিদর্শক নুরুল ইসলাম তদন্ত করে আলমগীর সরদারসহ চারজনের বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র দেন। আদালতে ২৩ জনের সাক্ষ্যগ্রহণ শেষে বুধবার এ মামলার রায় দেন বিচারক।