বর্তমান সাংসদের বিপক্ষে ও ১১ জনের জোটে শক্তাবস্থানে আছেন মন্ত্রী পত্নি মিনু।

প্রকাশিত

নাসিরগর(ব্রাহ্মণবাড়িয়া) প্রতিনিধি:

ব্রাহ্মণবাড়িয়া-১ সংসদীয় ২৪৩ আসন নাসিরনগরের ৫ বারের নির্বাচিত সাংসদ ছিলেন এডঃ ছায়েদুল হক। ২০১৪ সালে নির্বাচনে বিজয়ী হওয়ার পর আওয়ামীলীগের এই বর্ষীয়ান নেতাকে করা হয় সরকারের মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী। ২০১৭ সালের ১৬ ডিসেম্বর ঢাকার বঙ্গবন্ধু মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয় কলেজে বার্ধক্যজনিত কারণে চিকিৎসারত অবস্থায় মৃত্যুবরণ করেন ছায়েদুল হক। তার মৃত্যুর পর আসনটি শূন্য হয়ে পড়ে। উপ নির্বাচনের প্রয়োজনীয়তা দেখা দেয়। উপ নির্বাচনে এ আসন থেকে আওয়ামীলীগের একাধিক প্রার্থী মনোনয়ন দাবী করে। দলীয় কোন্দলের কারণে তখন মনোনয়ন বঞ্চিত হন মন্ত্রী পতœী আলহাজ্ব দিলশাদ আরা মিনু। পরবর্তীতে ১৩ মার্চ ২০১৮ এ আসন থেকে উপ নির্বাচনে সাংসদ নির্বাচিত হন বিএম ফরহাদ হোসেন সংগ্রাম। বর্তমান সাংসদ বিরোধী জোটের ১১ জনের সাথে কথা বললে তারা জানান বিএম ফরহাদ হোসেন সংগ্রাম সংসদ সদস্য নির্বাচিত হওয়ার পর স্থানীয় আওয়ামীলীগের নেতাকর্মীদের সাথে সম্পর্ক ছিন্ন করে বিএনপি জামাত ও স্বাধীনতা বিরোধী লোকজনকে নিয়ে চলা ফেরা জনবিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েন তিনি। দলে দেখা দেয় নেতৃত্বের সংকট। আওয়ামীলীগ হয়ে পড়ে দ্বিধাবিভক্ত। তাই নাসিরনগর আওয়ামীলীগকে রক্ষায় ও শান্তিপ্রিয় নাসিরনগরবাসীকে অশান্তির করাল গ্রাস থেকে রক্ষা করতে দেখা সঠিক নেতৃত্বের। তাই নাসিরনগর আওয়ামীলীগকে পুন:উদ্ধার করতে প্রয়াত মন্ত্রী পতœী আলহাজ্ব দিলশাদ আরা মিনুর নেতৃত্বে গঠন করা হয় বর্তমান সাংসদ বিরোধী ১১ জনের জোট। ১১ জনের জোটে রয়েছে বর্তমান উপজেলা চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক এটিএম মনিরুজ্জামান সরকার,কেন্দ্রীয় কৃষকলীগের সাবেক সিনিয়র সহ-সভাপতি এম এ করিম, কৃষক লীগের কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির অর্থবিষয়ক সম্পাদক আলহাজ্ব মোঃ নাজির মিয়া,লন্ডন আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি ও কুমিল্লা ব্রিটানিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান সৈয়দ এহছানুল হক, আওয়ামী প্রজন্মলীগের কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী কমিটির সহ-সভাপতি ইঞ্জি: মোঃ এখতেশামুল কামাল, যুক্তরাষ্ট্র নিউইয়র্ক ষ্ট্রেটের আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি এ,কেএম আলমগীর, কেন্দ্রীয় যুব মহিলালীগের শিক্ষা প্রশিক্ষণ ও পাঠাগার বিষয়ক সম্পাদক এমবি কানিজ, ঢাকাস্থ নাসিরনগর উপজেলা সমিতির সাধারণ সম্পাদক ও দৈনিক ভোরের চেতনার সম্পাদক মোঃ আলী আশ্রাফ, নাসিরনগর উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি ও হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিষ্ট্রান ঐক্য পরিষদের সভাপতি আদেশ চন্দ্র দেব, বাংলাদেশ হিন্দু মহাজোট ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা শাখার সভাপতি এডঃ রাখেশ চন্দ্র সরকারকে নিয়ে গঠন করে ১১ জনের জোট। জোট গঠন করে এলাকার বিভিন্ন ইউনিয়ন ও গ্রাম থেকে গ্রামান্তরে জননেত্রী শেখ হাসিনা সরকারের উন্নয়নের বিভিন্ন চিত্র জনসন্মুখে তুলে ধরে পথ সভা,গণসংযোগ, উঠান বৈঠক সহ বিভিন্ন প্রচারণামুলক সভা সমাবেশ, শুরু করেন তারা। এ সমস্ত কারণে ১১ জনের সমর্থনে ব্যাপক সাড়া পড়ে সমগ্র উপজেলায়। ১১ জন জানান তাদের জনসমর্থন দেখে মাথা ঘুরে যায় অন্য পক্ষের। ১১ জনের সমন্বয়ক ইঞ্জি: মোঃ এখতেশামুল কামাল জানান, খুব শীঘœই আমরা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার সাথে ১১ জন মিলে গণভবনে স্বাক্ষাৎ করে নাসিরনগরের সমস্ত বিষয় নিয়ে কথা বলব।