বাঁশখালীতে বন্দুকযুদ্ধে নিহত ডাকাত ইরান, বিদেশি পিস্তল সহ অস্ত্র উদ্ধার।

প্রকাশিত

মুহাম্মদ সাঈদুল ইসলাম  বাঁশখালী প্রতিনিধি-
৩০ আগষ্ট শুক্রবার সকাল ৮ টার সনয় বাঁশখালীর পূর্ব চাম্বলে র‍্যাবের সাথে বন্দুকযুদ্ধে মো.ইরান ওরফে ইরান ডাকাত (৩৫) নিহত হয়েছে।
জানা যায় ঘটনাস্থল থেকে একটি বিদেশি পিস্তল ১৩টি অস্ত্র, বিপুল পরিমাণ গুলি ও বিভিন্ন দেশীয় অস্ত্র উদ্ধার করা হয়েছে।
নিহত ইরান ডাকাত পূর্ব চাম্বল ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য মোহাম্মদ সিরাজ ফকিরের পুত্র বলে জানা যায়।

সম্প্রতি বাঁশখালীতে প্রকাশ্যে অস্ত্র মহড়ার অপরাধ চিত্র সামাজিক গণমাধ্যমে ভিডিও ফুটেজ ভাইরাল ও বিভিন্ন পত্র-পত্রিকায় এই দূর্ধর্ষ ডাকাত ইরানের নাম আছে বলেও জানা যায়।

সরেজমিনে গিয়ে তথ্য সূত্রে জানা যায় বাঁশখালীর দূরধর্ষ ডাকাত দলের মধ্যে সে অন্যতম একজন। প্রবাসী বাড়ীওয়ালা, বিভিন্ন ব্যবসায়ীসহ বিভিন্ন মানুষকে অস্ত্রের ভয় ও হুমকি দিয়ে চাঁদাবাজি করত। এমন কি চাঁদা না দিতে অসম্মতি জানালে জীবনে মেরে ফেলার হুমকিও দিত।
গেলো কিছুদিন আগে ডাকাত সর্দার জাকেরও র‍্যাবের সাথে বন্দুকযুদ্ধে নিহত হয়েছে। এলাকায় রীতিমতো আতংকিত মানুষ স্বস্তি ফিরে পাবে বলে আশা করেন, এমনটাই অনুভূতি এলাকাবাসীর।

বিষয়টি নিশ্চিত করে র‍্যাব-৭ এর মিড়িয়া অফিসার মোঃ মাশকুর রহমান বলেন,সকালে ৮ টার সময় র‍্যাবের টহল দলের সঙ্গে ডাকাত দলের বন্দুকযুদ্ধের ঘটনা ঘটে। পরে ঘটনাস্থল থেকে একজনের গুলিবিদ্ধ মরদেহ উদ্ধার করা হয়। ঘটনাস্থল থেকে একটি বিদেশি পিস্তলসহ ১৩ টি অস্ত্র, গুলি ও দেশীয় অস্ত্র উদ্ধার করা হয়েছে। ঘটনাস্থলে থাকা
র‍্যাব-৭ এর চাদগাঁও ক্যাম্পের কমান্ডার মেজর মেহেদী হাসান বলেন, ইরান কুখ্যাত ডাকাত। তার বিরুদ্ধে খুন,ডাকাতি সহ বিভিন্ন অপরাধে ৮/১০ টির মত মামলা রয়েছে।

বাঁশখালী থানা পুলিশ এস আই ফারক জানান,পুরো চাম্বল এলাকার মানুষ স্বস্তি ফিরে পেয়েছে মনে করছে। এলাকার লোকজন এই অভিযানের জন্যে প্রশাসনের প্রতি কৃতজ্ঞতা ও শুভেচ্ছায় সিক্ত করেছেন।

এবিষয়ে বাঁশখালী থানা অফিসার ইনচার্জ রেজাউল করিম মজুমদার বলেন আজ সকাল ৮ টায় বন্দুকযুদ্ধে ইরান ডাকাত নিহত হয়েছে।অস্ত্র মামলা সহ তার বিরুদ্ধে বেশ কয়েকটি  মামলা রয়েছে। অভিযানে বাঁশখালী থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে ছিল। রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত লাশ উদ্ধার করে সূরতহাল নির্ণয় করে ময়নাতদন্তের জন্য চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হবে জালান।