বাসের চাকায় পিষ্টে আহত স্কুলছাত্রীর মৃত্যু

প্রকাশিত

নাটোর প্রতিনিধি: বড়াইগ্রামে বাসের চাপায় পিষ্ট আহত স্কুলছাত্রী মারা গেছে। এর প্রতিবাদে এবং গতিরোধক স্থাপনের দাবিতে গতকাল মঙ্গলবার লাশ নিয়ে বিক্ষোভ মিছিল ও ঘন্টাব্যাপী মহাসড়ক অবরোধ করে রাখে শিক্ষার্থী ও এলাকাবাসী। নগর ইউপি চেয়ারম্যান নীলুফার ইয়াসমিন ডালু জানান, গত ১২ ফেব্রুয়ারি ধানাইদহ সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রথম শ্রেণীর শিক্ষার্থী ধানাইদহ গ্রামের শহীদুল ইসলামের মেয়ে হুমায়রা খাতুন (৬) স্কুল থেকে বাড়ি ফেরার পথে ঢাকাগামী ঈশ^রদী এক্সপ্রেসের চাপায় আহত হয়। তাকে ঢাকায় একটি হাসপাতালে ভর্তি করলে সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় সোমবার সন্ধ্যায় মারা যায়। এ ঘটনায় বিক্ষুব্ধ গ্রামবাসী ও স্থানীয় বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা গতিরোধক স্থাপনের দাবিতে মঙ্গলবার সকালে প্রায় এক ঘন্টা নাটোর-পাবনা মহাসড়ক অবরোধ করে লাশ নিয়ে দফায় দফায় বিক্ষোভ মিছিল করেন। একই সঙ্গে তারা এর আগে প্রশাসনের পক্ষ থেকে দেয়া গতিরোধক নির্মাণের ওয়াদা পূরণ না করায় ক্ষোভ প্রকাশ করেন। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে ঘটনাস্থলে বিপুল সংখ্যক পুলিশ মোতায়েন করা হয়।