বিক্ষোভকারীদের গণহারে গ্রেফতার করছে মালদ্বীপ পুলিশ

প্রকাশিত

বিক্ষোভকারীদের গণহারে গ্রেফতার করছে মালদ্বীপ পুলিশ

মালদ্বীপের প্রেসিডেন্ট আবদুল্লাহ ইয়ামিনের বিরুদ্ধে দেশটিতে বিক্ষোভকারীদের গণহারে গ্রেফতার করছে পুলিশ। শুক্রবার রাতে দেশটির রাজধানী মালে ও অন্য প্রধান শহরগুলোতে প্রেসিডেন্টের ডাকা জরুরি অবস্থার বিরুদ্ধে বিক্ষোভ র‌্যালির নিষেধাজ্ঞাকে উপেক্ষা করে তারা রাস্তায় নেমে আসেন। এসময় অন্তত ১৪১ জনকে গ্রেফতার করেছে মালদ্বীপের পুলিশ।

শনিবার রাজধানী কলম্বো থেকে গণতন্ত্রপন্থীরা এক বিবৃতিতে জানায়, প্রেসিডেন্টের নির্দেশ, পুলিশ ও সেনাবাহিনীর টিয়ারগ্যাসকে উপেক্ষা করে শুক্রবার রাতে মালের রাস্তায় বিক্ষোভ শুরু করেন নাগরিকরা। শনিবার সকাল পর্যন্ত এ বিক্ষোভ অব্যাহত ছিল। বিবৃতিতে আরও বলা হয়, বিক্ষোভস্থল থেকে অন্তত ১৪১ জন গণতন্ত্রকামী নাগরিক গ্রেফতার হয়েছেন। এদের মধ্যে ২৬ জন নারী ও ৩ জন সাংবাদিক রয়েছেন। তাদের শনিবার কারাগারে নেয়া হয়েছে। দু’জনকে ছেড়ে দেয়া হয় বলেও বিবৃতিতে বলা হয়েছে। পুলিশ বলেছে, বিক্ষোভ দমনে তারা কাঁদানে গ্যাস ও টিয়ারগ্যাস ছুড়েছে।

উল্লেখ্য, বিরোধী দলের ৯ নেতার বিরুদ্ধে বিভিন্ন অভিযোগ থাকলে গত ১ ফেব্রুয়ারি সুপ্রিমকোর্ট তা প্রত্যাখ্যান করে তাদের মুক্তি দেয়। কিন্তু সুপ্রিমকোর্টের রায়ের ব্যাপারে কর্ণপাত করেনি সরকার। সুপ্রিমকোর্ট ও সরকারের মধ্যে কয়েকদিনের উত্তেজনার পর ৫ ফেব্রুয়ারি ১৫ দিনের জন্য জরুরি অবস্থার ঘোষণা দেন প্রেসিডেন্ট ইয়ামিন। জরুরি অবস্থার এ সময়সীমা শেষ হলে আরও এক মাসের জন্য জরুরি অবস্থা বাড়িয়ে দেন তিনি। জরুরি অবস্থার মধ্যে সভা, মিছিল, মিটিং অবৈধ ঘোষণা করেন ইয়ামিন। বিরোধীদলীয় এমপিরা এ ভোটকে অসাংবিধানিক আখ্যা দিয়ে ভোট বয়কট করেছে। জরুরি অবস্থার নতুন মেয়াদ শেষ হবে ২২ মার্চে।