বিদেশের মাটিতে বোঝা যাবে ‘শাস্ত্রীর ভারত’ কেমন

প্রকাশিত

রবি শাস্ত্রীসোজা কথাটা সোজা করে বলতেই পছন্দ করেন রবি শাস্ত্রী। কিছুদিন আগে টি-টোয়েন্টি নিয়ে বলেছিলেন, এ সংস্করণে ‘হারলাম নাকি জিতলাম, এতে কিছু যায়-আসে না।’ এবার দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে যাওয়ার আগে শিষ্যদের প্রতি পরোক্ষভাবে চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দিলেন ভারতীয় দলের হেড কোচ। বিদেশের মাটিতে জেতার তাগিদ দিয়ে শাস্ত্রীর উক্তি, ভারতের এই দলটা কেমন, তা আগামী দেড় বছরে বিদেশের মাটিতে বোঝা যাবে।

সর্বশেষ নয়টি টেস্ট সিরিজেই জিতেছে ভারত। এর মধ্যে তিনটি সিরিজ ব্যতীত বাকি ছয়টি সিরিজই তারা জিতেছে দেশের মাটিতে। কিন্তু আসছে নতুন বছরে বিরাট কোহলির দলকে টানা পরীক্ষা দিতে হবে বিদেশের মাটিতে। ৫ জানুয়ারি থেকে দক্ষিণ আফ্রিকার মাটিতে তিন ম্যাচের টেস্ট সিরিজে অংশ নেবে ভারত। সেখানে ৬ ম্যাচের ওয়ানডে এবং তিন ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজেও অংশ নেবেন শাস্ত্রীর শিষ্যরা। এরপর রয়েছে ইংল্যান্ড এবং অস্ট্রেলিয়া সফর।

শাস্ত্রী এই তিনটি দেশে অনুষ্ঠেয় সিরিজ নিয়ে বেশ চিন্তিত। দক্ষিণ আফ্রিকার উদ্দেশে উড়াল দেওয়ার আগে মুম্বাইয়ে সংবাদ সম্মেলনে ভারতীয় কোচ বলেন, ‘কন্ডিশন পরীক্ষা নেবে। কিন্তু এই দেড় বছরে ভারতের এ দলটা কেমন তা বোঝা যাবে। গোটা দলই ব্যাপারটা জানে এবং সামনের দেড় বছরে দক্ষিণ আফ্রিকা, ইংল্যান্ড ও অস্ট্রেলিয়ায় যে সফর আছে, সেদিকে তাকিয়ে বলতে পারি, ১৮ মাস পর এ দলটা আরও ভালো হবে।’
দক্ষিণ আফ্রিকার বাউন্সি ও পেসবান্ধব উইকেট যে ভারতীয় ব্যাটসম্যানদের পরীক্ষা নেবে, সে কথা বলাই বাহুল্য। ২০১৩ সালের সফরে জোহানেসবার্গ টেস্টে অবশ্য ভালোই লড়েছিল ভারত। ড্র হওয়া সেই ম্যাচে ভারতের দুই ইনিংসে ১১৯ ও ৯৬ রানের ইনিংস খেলেছিলেন বর্তমান অধিনায়ক কোহলি। তা, এবার দক্ষিণ আফ্রিকার কন্ডিশনে কেমন করতে পারেন ভারতের ব্যাটসম্যানরা? প্রশ্নটির জবাবে ভারতীয় অধিনায়ক গুরুত্ব দিলেন ব্যাটসম্যানদের মানসিক প্রস্তুতির ওপর, ‘এটা নির্ভর করছে ব্যাটসম্যান হিসেবে আপনি কী ধরনের মানসিক প্রস্তুতি নিচ্ছেন। মানসিকভাবে প্রস্তুত থাকলে যেকোনো কন্ডিশনই ঘরের কন্ডিশন।’

Be the first to write a comment.

Leave a Reply