বুড়িগঙ্গায় এসে বড় ভাইয়ের লাশ পেলেন পরশ

প্রকাশিত

রাজধানীর শ্যামবাজার এলাকার বুড়িগঙ্গা নদীতে ডুবে যায় একটি যাত্রীবাহী লঞ্চ। লঞ্চটিতে অর্ধশতাধিক যাত্রী ছিল। সোমবার সকালে সাড়ে ৯টার দিকে এ দুর্ঘটনা ঘটে। খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা ঘটনাস্থলে পৌঁছে উদ্ধার কাজ শুরু করেছেন। শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত ৩০ জনের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। উদ্ধার কাজ চলছে।

লঞ্চডুবির ঘটনায় নিখোঁজ রয়েছেন আরো অনেকেই। নিখোঁজদের স্বজনদের কান্নায় আকাশ-বাতাস ভারী ওঠেছে। তাদের হন্যে হয়ে খুঁজছেন স্বজনরা। এমনই একজন মুন্সিগঞ্জের পরশ আলী (৩০)। দুর্ঘটনায় তার ভাই নিখোঁজ ছিলেন। পরে উদ্ধারকৃত মরদেহগুলো থেকে তার ভাই সুমন তালুকদারকে (৩৫) শনাক্ত করেন তিনি। পরশ আলী জানান, তার ভাই যমুনা ব্যাংক ইসলামপুর শাখায় সাব-কনট্যাক্টের ভিত্তিতে কাজ করতেন। লঞ্চডুবির ঘটনায় তিনি নিখোঁজ ছিলেন। পরে তাকে শনাক্ত করা হয়।

এরে আগে আজ সকালে ঢাকা-চাঁদপুর রুটের ময়ূর-২ নামের একটি লঞ্চের ধাক্কায় কমপক্ষে ৫০ যাত্রী নিয়ে ঢাকা-মুন্সিগঞ্জ রুটের মর্নিং বার্ড লঞ্চটি ডুবে যায়। লঞ্চটি থেকে কয়েকজন যাত্রী সাঁতরে পাড়ে উঠলেও বেশ কয়েকজন নিখোঁজ ছিলেন। পরে নিখোঁজদের উদ্ধারে ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরি দল উদ্ধার অভিযান শুরু করে।